বাল্য বন্ধু

প্রকাশিত: ০৪ ফেব্রুয়ারী, ২০১৭ ১২:৩৮:১৪

বাল্য বন্ধু

   রাশেদুল আলম

মোরা ছিনো একই সুতোয় গাঁথা

যেন একটি কুঁড়ির তিনটি সবুজ পাতা।

 

হয়েছে কত রং তামাশার মেলা

করেছি কত রং বেরঙ্গের খেলা

কত সুন্দর কেটেছে ছেলেবেলা।

 

শৈশব গিয়ে কৈশোর যখন এলো

ত্রি-মন যেন আরও নিবিড় হলো,

সেদিনগুলো আজ কোথায় চলে গেলো?

 

পুকুর পাড়ে জামগাছের ঐ ডালে

কত শসা-আঁখ খেয়েছি কৌশলে

ভাবতেই দু'চোখ করে টলমলে।

 

কত স্মৃতি ভাসে মনে ওরে আনোয়ার,

ভুলে কি গেলি মোস্তফা গেমের মার?

হয়েছে কত দু'জনার জীত হার।

 

কত খুনসুটি হতো সোহাগ তোর সনে

মার হতো তবু কার কথা কে মানে?

সে কথাগুলো আজ কি পড়ে মনে?

 

এমনি করেই চললো সময় ঘড়ি,,,,,,,,,

 

আনোয়ার দিলি মালয়েশিয়া পাড়ি

ভর করে ঐ হাওয়াই চাকার গাড়ি,

লাকসামে গেলাম তোরে বিদায় দিব বলে

জানিয়ে বিদায় চোখটি মুছে

বাড়িতে এলাম চলে।

 

ক'দিন পরে সোহাগও গেলি চলে

সুদূর দুবাই চাকরি করবি বলে,

গভীর রাতে বিদায় দিয়ে তোরে

শূন্য মনে ফিরলাম নিজ ঘরে।

 

দেখ্ দেখ্ ওরে নিয়তির কি খেলা

সেই থেকে আজ কেটেছে কত বেলা,

জীবিকার টানে তিনজনি আজ একেলা।

 

কতদিন হলো দেখিনা তোদের মুখ

ভাবতেই ভাঙে কষ্টে আমার বুক,

তোরা থাকলে সুখে

তবেই আমার সুখ।

রাশেদুল আলম/রাবি

পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন