স্বামী ছেড়ে সন্তান নিয়ে থাকেন যে তারকারা

প্রকাশিত: ০৮ ফেব্রুয়ারী, ২০২০ ১০:৪৯:২৪

সন্তান নিয়ে থাকেন- তারকাদের মধ্যে এমনই অনেক মা-ই আছেন, যারা সিঙ্গেল মা হিসেবে সন্তানকে লালন-পালন করেন। তাদের কেউ বিধবা, আবার কেউ ডিভোর্সি। তবু সন্তানকে বড় করার জন্য একাই হয়ে উঠছেন সন্তানের বাবা-মা। তারা বাবার মতো কঠিন হয়ে সন্তানদের শাসন করেন আবার মায়ের মতো স্নেহ দিয়ে তাদের দুঃখ ভুলিয়ে রাখেন।

তাদের একজন হলিউড তারকা অ্যাঞ্জেলিনা জোলি। তিনি ‘সিঙ্গেল মা’ হয়ে সন্তান লালন-পালন করেন, সে খবর আমরা হলিউড মূল্লুক থেকে শুনেছি। তবে অবাক হওয়ার কিছুই নেই, আমাদের দেশেও রয়েছে এমন অনেক তারকা। যারা ‘সিঙ্গেল’ থেকেই সন্তান পালন করছে।

আজ পাঠকদের জানাবো সে সব সিঙ্গেল মা-দের খবর, যাদের সংসার ভেঙে গেছে। কিন্তু সন্তানদের আগলে রেখেছে পরম মমতায়। তারা ‘সিঙ্গেল মা’ পরিচয় বহন করে সন্তানের ভবিষ্যৎ গড়ার সংগ্রামের গল্প বুনছেন। সামাজিক বা পরিবারিক সংগ্রামের ভেতর দিয়ে মাতৃত্বকে আরো গর্বিত করেছেন।

ববিতা চলচ্চিত্রের এক সময়ের জনপ্রিয় নায়িকা ববিতা। তার ছেলে অনিক ইসলামের বয়স যখন মাত্র তিন বছর (ঘটনা ১৯৯৩ সালের ১০ জানুয়ারি) তখনই তার স্বামী ইফতেখারুল আলম মারা যান। এরপর থেকে ববিতা তার একমাত্র ছেলে অনিককে নিয়েই আছেন।

স্বামীর মৃ ত্যুর পর থেকে অনিককে মানুষ করাই ছিল তার একমাত্র কাজ। একদিকে অভিনয়, অন্যদিকে সংসার-সন্তান সামলানো এসব তিনি করেছেন। কীভাবে সম্ভব হলো? এমন প্রশ্নের জবাবে ববিতা বলেন, অনিক যখন ছোট, তখন ঢাকার বাইরে কোনো শুটিং করতাম না। এফডিসি বা ঢাকার মধ্যে যে কাজগুলো হয়েছে, সেগুলো করেছি।

ধীরে ধীরে অনিক বড় হয়েছে। তখন বাইরে কাজ করতাম। কিন্তু সারাক্ষণ ছেলের খবর রাখতাম। খেয়েছে কি না? স্কুল থেকে ফিরে বিশ্রাম নিয়েছে কি না? স্কুলের পড়া ঠিকমতো হলো কি না? এমনকি বাসায় কোন শিক্ষকের কাছে পড়বে? তার সবই আমি ঠিক করতাম।

আমার ছেলেও ভীষণ ভালো ছিল। সে অতটুকু বয়স থেকেই আমাকে বোঝতো। ও লেখাপড়ায় বেশ ভালো। সে তার উচ্চতর শিক্ষাটা কানাডা থেকে নিয়েছে। আমি বারো মাস ওর সঙ্গে কানাডা না থাকতে পারলেও ওর জন্মদিন সহ বিশেষ দিনগুলোতে ওর কাছে থাকার চেষ্টা করি।

জাকিয়া বারী মম জাকিয়া বারী মম। তার সংসার ভেঙেছে আরো অনেক আগেই। জনপ্রিয় নাট্য নির্মাতা এজাজ মুন্নার সঙ্গে ছিল তার প্রথম সংসার। সে ঘরে এসেছে মম’র ছেলে উদ্ভাস। স্বামীকে ছেড়ে আলাদা হয়ে গেলেও মম আজো আগলে রেখেছেন সন্তানকে। এখন ছেলে উদ্ভাসের বয়স আট। সে পড়াশুনা শুরু করেছে। মম বলেন, আমার বাচ্চাটা আহ্লাদের কৌটা হয়েছে। খুব বুঝদার।

আমি শুটিংয়ে থাকলেও ওর সঙ্গে নিয়মিত যোগাযোগ করি। আর ছুটির দিন হলে তো কথাই নেই। ছেলেকে নিয়েই থাকি সারাক্ষণ। ওর ভবিষ্যতের জন্যই এখন আমিই যথেষ্ট। আমি ছাড়া’তো ওর দেখভালের আর কেউ নেই। ওকে আমি মানুষের মতো মানুষ করতে চাই।

বাঁধন বাঁধন। ২০১০ সালে বিয়ে করেছিলেন এই লাক্স সুন্দরী। বিয়ের চার বছরের মাথায় সংসারের ইতি টানেন তিনি। এরপর স্বামীর ঘর ছেড়ে বাবার বাসায় ওঠেন। এখন তার মেয়ে মিশেল আমানী সায়রাকে নিয়েই তার পৃথিবী। মেয়ের বয়স সাড়ে ছয় বছর হয়েছে। পড়াশুনা করছে সানবিমস স্কুলে।

পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন