বাণিজ্য মেলায় ব্লেজারে ‘রাজকীয় ও গোল্ডেন’ অফার

প্রকাশিত: ১৪ জানুয়ারী, ২০২০ ০৫:২১:৫৩

ক্রেতা সংকট কাটাতে ২৫তম ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলার প্রথম থেকেই ব্লেজার বিক্রির প্রতিষ্ঠানগুলো বিভিন্ন অফার দেয়া শুরু করেছে। এসব অফারের মধ্যে রয়েছে ‘রাজকীয়’ ও ‘গোল্ডেন’ অফার। সাধারণত মেলার শেষ দিকে এমন অফার নিয়ে আসে প্রতিষ্ঠানগুলো।

এবার মেলার প্রথম সপ্তাহ থেকেই বেশিরভাগ স্টল এসব অফার দেয়া শুরু করেছে। রাজকীয় অফারের আওতায় প্রতিষ্ঠানগুলো ১ হাজার ২০০ থেকে ১ হাজার ৩০০ টাকার মধ্যে ব্লেজার ও মোদি কোট বিক্রি করছেন। গোল্ডেন অফারে পাওয়া যাচ্ছে ১ হাজার ৪০০ থেকে ১ হাজার ৮০০ টাকার মধ্যে ব্লেজার।
মেলায় অংশ নেয়া বিভিন্ন স্টলের বিক্রয়কর্মীরা জানান, এবার বাণিজ্য মেলায় প্রথম দিকে ক্রেতা-দর্শনার্থীর সংখ্যা খুবই কম ছিল। যারা এসেছে তাদের বেশিরভাগই পণ্য দেখে ঘুরে চলে যাচ্ছেন। এতে প্রথম এক সপ্তাহ বেশিরভাগ প্রতিষ্ঠানই তেমন কিছু বিক্রি করতে পারেনি। এ কারণে মেলার শুরু থেকেই বিভিন্ন অফার দেয়া শুরু হয়েছে।

তারা জানান, সাধারণত মেলার শেষ দিকে ব্লেজার বিক্রির প্রতিষ্ঠানগুলো বিভিন্ন অফার নিয়ে আসে। মেলায় অফারের আওতায় থাকা ব্লেজারগুলো সব থেকে বেশি বিক্রি হয়। এজন্য এবার মেলার শুরু থেকেই অফার দেয়া শুরু হয়েছে। তবে শেষ দিকে অফারের প্রবণতা আরও বাড়বে।

মেলায় ব্লেজার বিক্রিতে রাজকীয় অফার চালু করা একটি স্টল সাইফা হ্যান্ডিক্রাফট। এই স্টলটির বিক্রয়কর্মী মো. আকাশ বলেন, আমরা মেলার শুরু থেকেই অফার দিচ্ছি। রাজকীয় অফারের আওতায় একটি ব্লেজারের দাম রাখছি ১ হাজার ২০০ টাকা। এছাড়া আমাদের বিভিন্ন দামের ব্লেজার রয়েছে। ১ হাজার ৪০০ থেকে ৪ হাজার টাকার মধ্যে ভালো মানের ব্লেজার পাওয়া যাবে।

তিনি বলেন, গত বছর আমরা রাজকীয় অফার দেয়া শুরু করেছিলাম মেলার ১৫ দিন পর থেকেই। অফারের আওতায় ব্লেজার বেশ ভালো বিক্রি হয়। কিন্তু এবার মেলার প্রথমদিকে ক্রেতা সংখ্যায় কম ছিল। এ কারণে প্রথম সপ্তাহ থেকেই রাজকীয় অফার দেয়া শুরু করেছি। গত দুদিন ভালো বিক্রি হয়েছে। সামনে আমরা আরও আকর্ষণীয় অফার নিয়ে আসব।

এদিকে মেলা প্রাঙ্গণ ঘুরে দেখা গেছে, উত্তর, দক্ষিণ, পূর্ব, পশ্চিম দিকেই ব্লেজার বিক্রেতা প্রতিষ্ঠান রয়েছে। প্রতিটি ব্লেজার বিক্রির প্রতিষ্ঠান থেকে কোনো না কোনো অফার দেয়া হচ্ছে। তবে এর প্রায় সবগুলোই অপরিচিত ব্র্যান্ডের। রাজধানীর গুলিস্তান, নীলক্ষেত, ফার্মগেট, এলিফ্যান্ট রোড, মিরপুর, ভাষানটেক, কেরানিগঞ্জসহ বিভিন্ন এলাকার প্রতিষ্ঠান মেলায় ব্লেজারের পসরা সাজিয়ে বসেছে।

ব্লেজারের গোল্ডেন অফার চালু করা এমন একটা প্রতিষ্ঠান চায়না গিফট কর্নার। প্রতিষ্ঠানটির কর্মচারী সুমন বলেন, মিটফোর্ডে আমাদের নিজস্ব দোকান আছে। সেখানে যে দামে বিক্রি করি, মেলায় তার থেকে কম দামে বিক্রি করা হচ্ছে।

তিনি বলেন, গত বছরও আমরা বাণিজ্য মেলায় অংশ নিয়েছিলাম। মেলার শেষ ১০ দিন ব্লেজার বিক্রি খুব ভালো হয়। বিশেষ করে শেষ সপ্তাহে ব্লেজার বিক্রিতে কাড়াকাড়ি পড়ে। ক্রেতাদের ভিড় সামাল দিতে আমাদের হিমশিম খেতে হয়। এ কারণে এবার আগেভাগেই অফার দেয়া শুরু করেছি।

তিনি আরও বলেন, বর্তমানে পোশাক হিসেবে তরুণ-তরুণীদের পছন্দের গুরুত্বপূর্ণ একটি অংশ দখল করে নিয়েছে ব্লেজার। শীত বা গরম সব ঋতুতেই ব্লেজারের চাহিদা রয়েছে। তবে শীতে স্টাইলিশ হিসেবে ব্লেজারের কদর তুলনামূলক বেশি। এবার শীত ভালোই পড়েছে। আমরা আশা করছি, আমাদের বিক্রিও ভালো হবে।

মেলা প্রাঙ্গণে ব্লেজারের পসরা সাজিয়ে বসেছে এমন আরেকটি প্রতিষ্ঠান মুক্তা ফ্যাশন হাউজ। প্রতিষ্ঠান নিউ আকর্ষণ লেখা ঝুলিয়ে ১ হাজার ২০০ টাকায় বিক্রি করছে মোদি কোট। ১ হাজার ৪০০ ও ১ হাজার ৮০০ টাকা মূল্য ঝুলিয়ে বিক্রি করছে ব্লেজার। এর পাশাপাশি প্রতিষ্ঠানটি দামি ব্লেজারও বিক্রি করছে।

প্রতিষ্ঠানটির বিক্রয়কর্মী জহির বলেন, আগামী সপ্তাহ থেকেই ব্লেজারে ফাটাফাটি অফার নিয়ে আসব। আমার কাছ থেকে কম দামে ক্রেতারা ভালো মানের ব্লেজার কিনতে পারবেন। ফার্মগেটের গ্রীন রোডেও আমাদের দোকান আছে। সেখান থেকেও ক্রেতারা ব্লেজার কিনতে পারবেন। তবে মেলা থেকে কিনলে দাম তুলনামূলক কম পড়বে।

মেলায় কম দামে ব্লেজার বিক্রির কারণ জানতে চাইলে তিনি বলেন, মেলায় কম লাভে অধিক বিক্রি আমরা এই নীতি ফলো করার চেষ্টা করছি। এতে পিসপ্রতি লাভ কম হলেও সামগ্রিকভাবে লাভ বেশি হবে।

এদিকে প্রতিষ্ঠানগুলোর দেয়া অফারে আকৃষ্টও হচ্ছেন ক্রেতারা। একটি প্রতিষ্ঠান থেকে ১ হাজার ২০০ টাকায় মোদি কোট কেনা হাসানুজ্জামান বলেন, গত মাসে মিরপুর থেকে ২ হাজার টাকা দিয়ে একটি মোদি কোট কিনি। মেলা থেকে কিনলাম ১ হাজার ২০০ টাকা দিয়ে। আমার কাছে দুটির মানের মধ্যে খুব বেশি পার্থক্য মনে হয়নি। তবে দামের মধ্যে অনেক তফাৎ। এখন কিছুদিন গায়ে দিলেই বুঝতে পারব, ঠকলাম না জিতলাম।

তিনি বলেন, পুরুষের পাশাপাশি নারীরাও এখন ফরমাল পোশাক হিসেবে স্যুট ও ব্লেজার ব্যবহার করেন। চাকরিজীবী, শিক্ষার্থী সবাই এখন ব্লেজার ব্যবহার করছেন। বাস্তবতা হলো ব্লেজার এখন ফ্যাশনের একটি অন্যতম হাতিয়ার হয়ে দাঁড়িয়েছে। ছোটখাটো পার্টিতেও ব্লেজার ছাড়া গেলে কেমন কেমন লাগে।

একটি স্টল ঘুরে ব্লেজার দেখছিলেন আরিফুল। বলেন, বেশ কয়েকটি ব্লেজারের স্টল ঘুরে দেখলাম। আমার কাছে মনে হচ্ছে এসব ব্লেজারের দাম সামনে আরও কমবে। এখন যে ব্লেজার ১ হাজার ৪০০ থেকে ১ হাজার ৬০০ টাকার মধ্যে বিক্রি করছে, মেলার শেষ দিকে তা হাজার টাকায় পাওয়া যেতে পারে। তাই আজ শুধু ঘুরে দেখলাম। মেলার শেষ সপ্তাহে দুটি ব্লেজার কিনব বলে ঠিক করেছি।

প্রজন্মনিউজ২৪/সজীব

পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন





ব্রেকিং নিউজ