কেন কাঁদলেন আলিয়া!

প্রকাশিত: ০৪ ডিসেম্বর, ২০১৯ ১২:৫৮:৪১ || পরিবর্তিত: ০৪ ডিসেম্বর, ২০১৯ ১২:৫৮:৪১

নীরবতাগুলো ধরতে পারিনি। আমাকেগত বছর ইনস্টাগ্রামে আলিয়া ভাট তার বোন শাহিন ভাটের ছবি শেয়ার করে জানিয়েছিলেন, শাহিন ভাট ১২ বছর বয়স থেকেই মানসিক অবসাদে ভুগছেন। ডিপ্রেশনের ফলে আত্মহত্যা করার দিকে পর্যন্ত ঝুঁকেছিলেন তিনি। সম্প্রতি এক অনুষ্ঠানে দুই বোন আলিয়া ভাট ও শাহিন ভাট একসঙ্গে অংশ নেন। ওই অনুষ্ঠানে বারখা দত্তের এক প্রশ্নে আলিয়া ভাট বলেন, শাহিন ভাটের বই পড়ে তার ওই বয়সের মনের অবস্থা জানতে পারি।

এর আগে কখনো এ ব্যাপারে কিছুই জানতে পারিনি। আর তখন তার পাশে এসে দাঁড়াতে পারিনি। সেই দিনগুলোর কথা মনে হলে কষ্ট পাই। মানসিক অবস্থা কতটা খারাপ হলে সে আত্মহত্যা করার কথাও ভেবেছে। এ কথাগুলো বলতে গিয়ে খারাপ দিনগুলোতে বোনের পাশে না থাকতে পারার অনুশোচনার কথা ব্যক্ত করেন আলিয়া। এক পর্যায়ে তিনি কান্নায় ভেঙে পড়েন। তখন আলিয়া ভাটকে অনেক বুঝিয়েও শান্ত করতে পারেননি তার বোন শাহিন ভাট।

২০১৮ সালের বিশ্ব মানসিক স্বাস্থ্য দিবসে প্রকাশিত হয় শাহিন ভাটের ‘আই হ্যাভ নেভার বিন (আন) হ্যাপিয়ার’। তার কিছুদিন পরই বইটি পড়ে আলিয়া ভাট ইনস্টাগ্রামে এক ভিডিওর মাধ্যমে জানিয়েছিলেন, তোমার (শাহিন ভাট) বইটা পড়েছি। তোমাকে কিছু না বলে আর থাকতে পারছি না।

যখন পড়েছি, দেখেছি তুমি কত সহজে নিজের কথাগুলো বলছ! আর তোমাকে একটা চিঠি লিখতে গিয়ে মনে হচ্ছে, আমি যুদ্ধ করছি। একটা সময় তুমি অবসাদে ভুগেছো, কিন্তু আমি বুঝতে পারিনি। তোমার  ক্ষমা করো।

প্রজন্মনিউজ২৪/নাজিম উদ্দীন

পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন