বিশ্ব শিশুদিবস

৫ শতাধিক রোগীকে বিনামূল্যে স্বাস্থ্যসেবা দিয়েছে আল-মানার হাসপাতাল

প্রকাশিত: ১৭ নভেম্বর, ২০১৯ ১১:৪৬:০০ || পরিবর্তিত: ১৭ নভেম্বর, ২০১৯ ১১:৪৬:০০

বিশ্ব শিশুদিবস উপলক্ষ্যে রাজধানীর অদূরে কেরানীগঞ্জের ঘাটারচরে ৫১৩ জন রোগীকে বিনামূল্যে স্বাস্থ্যসেবা প্রদান করেছে আল-মানার হাসপাতাল লিমিটেড।

বিভিন্ন দিবসকে কেন্দ্র করে স্বল্প আয়ের মানুষের মধ্যে স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত করতে নিয়মিত কর্মসূচীর অংশ হিসেবে গত ১৫ নভেম্বর এ স্বাস্থ্যসেবা প্রদান করে প্রতিষ্ঠানটি।

ফ্রি মেডিকেল ক্যাম্পে আল-মানার হাসপাতালের উদ্যোগে বিনামূল্যে কনসালটেশন, শিশু বিভাগে ৫৮ জন, গাইনি বিভাগে ৫৩ জন, মেডিসিন বিভাগে ৫৬ জন, অর্থোপেডিক বিভাগে ৪৬ জন, ডায়াবেটিস-চেকআপ ১৪৫ জন, ব্লাড গ্রুপ-চেক আপ ১৫৫ জন। এছাড়াও প্রায় সকলে ব্লাড প্রেসার-চেক আপ, ওজন নির্ণয়সহ আরো বেশ কিছু রোগের চিকিৎসা দেওয়া হয়।

এদিন সকাল নয়টা থেকে দুপুর একটা পর্যন্ত আশপাশের এলাকা থেকে আসা ৫১৩ জন রোগীকে সেবা প্রদান করা হয়।

মেডিকেল ক্যাম্পে ১১ জন বিষেশজ্ঞ চিকিৎসকগণ সেবা প্রদান করেছেন। এরমধ্যে ছিলেন শিশু বিষেশজ্ঞ অধ্যাপক ডাঃ এম এ কে আজাদ চৌধুরী, অধ্যাপক ডাঃ চৌধুরী মোঃ হায়দার আলী, সহযোগী অধ্যাপক ডাঃ ফরিদ উদ্দিন আহমেদ। গাইনী বিভাগের ডাক্তার মাহমুদা বেগম। মেডিসিন বিভাগের ডাঃ মোহাম্মদ সরোয়ার নেওয়াজ, ডাঃ মাহাবুব হাসান মামুন, ডাঃ মোঃ এনায়েত উল্লাহ।

এছাড়া অর্থোপেডিক ও স্পাইন বিভাগের সহকারি অধ্যাপক ডাঃ মোঃ শহিদুল ইসলাম আকন এবং অর্থোপেডিক সার্জারি বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক আইনুল ইসলাম জোয়ারদার । এ ক্যাম্পের সার্বিক ব্যয় বহন করে আল-মানার হসপাতাল কতৃপক্ষ।

উক্ত ক্যাম্পে আরো উপস্থিত ছিলেন আল-মানার হসপাতাল এর চেয়ারম্যান প্রফেসর ডঃ এম এ কে আজাদ চৌধুরী, ম্যানেজিং ডাইরেক্টর ডাঃ মোঃ এনায়েত উল্লাহ, পরিচালক ডাক্তার এ কে এম শামসুজ্জোহা এবং ডাইরেক্টর মেইনটেনেন্স মোঃ আমির হোসেন।

এ সময় প্রতিষ্ঠানটির চেয়ারম্যান প্রফেসর ডঃ এম এ কে আজাদ চৌধুরী বলেন, ‘আল-মানার হাসপাতালের এ প্রচেষ্ঠা সমাজের চাহিদার তুলনায় খুবই অপ্রতুল। সরকারী বিভিন্ন উদ্যোগের পাশাপাশি বেসররকারী যে সকল হাসপাতাল রয়েছে তারাও যদি একই সাথে এগিয়ে আসেন তবে সমাজের নিম্নবিত্ত মানুষের স্বাস্থ্যসেবার অভাব পূরণ অনেকাংশে লাঘব হবে।’

এ সময় দিনব্যাপী এ মেডিকেল ক্যাম্প তদারক করেন হাসপাতালের পরিচালক ডাঃ মোঃ এ কে এম শামসুজ্জোহা ও এডমিন ম্যানেজার মিসবাহ উদ্দিন।

ক্যাম্পে অন্যান্য বিভাগের মধ্যে বিজনেস ডেভেলপমেন্ট বিভাগের পাঁচজন, মেডিকেল টেকনোলজিস্ট তিনজন, দুইজন নার্স, চারজন কাষ্টমার কেয়ারসহ আরো ২৫ জন জনবল সার্বক্ষনিক দ্বায়িত্ব পালন করেন। এছাড়াও রোগী,কনসালটেন্ট, স্টাফ ও মালামাল আনা নেওয়ার জন্য সার্বক্ষনিক ২ টি এম্বুলেন্স নিয়োজিত ছিল।

প্রজন্মনিউজ২৪/মাসুদ খান/নুর মোহাম্মদ

পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন



আরো সংবাদ