বুয়েট শিক্ষার্থী আবরার হত্যায় বিস্মিত ও মর্মাহত যুক্তরাজ্য

প্রকাশিত: ০৯ অক্টোবর, ২০১৯ ০৪:২৬:৪৭

আজ বুধবার (৯ অক্টোবর) হাইকমিশন নিজস্ব ফেসবুক পেজে বাংলা ও ইংরেজিতে দেওয়া এক পোস্টে জানিয়েছে, বুয়েটে ঘটে যাওয়া ঘটনায় আমরা বিস্মিত ও মর্মাহত।যুক্তরাজ্য বাকস্বাধীনতা, গণমাধ্যমের স্বাধীনতা, মানবাধিকার ও আইনের শাসন প্রসঙ্গে নিঃশর্তভাবে অঙ্গীকারবদ্ধ।

আজ বুধবার (৯ অক্টোবর) হাইকমিশন নিজস্ব ফেসবুক পেজে বাংলা ও ইংরেজিতে দেওয়া এক পোস্টে জানিয়েছে, বুয়েটে ঘটে যাওয়া ঘটনায় আমরা বিস্মিত ও মর্মাহত। যুক্তরাজ্য বাকস্বাধীনতা, গণমাধ্যমের স্বাধীনতা, মানবাধিকার ও আইনের শাসন প্রসঙ্গে নিঃশর্তভাবে অঙ্গীকারবদ্ধ।

উল্লেখ্য, গত ৬ অক্টোবর রাতে বুয়েটের শেরে বাংলা হলের ২০১১ নম্বর কক্ষে ডেকে নিয়ে আবরারকে পিটিয়ে হত্যা করেন বুয়েট শাখা ছাত্রলীগের কয়েকজন নেতাকর্মী। ৫ অক্টোবর নিজের ফেসবুক আইডি থেকে করা এক পোস্টের জেরে তাকে হত্যা করা হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। আবরার বুয়েটের ইলেকট্রিক্যাল অ্যান্ড ইলেকট্রনিক্স ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র।

এ ঘটনায় আবরারের বাবা বরকতউল্লাহ ১৯ জনকে আসামি করে সোমবার রাজধানীর চকবাজার থানায় হ*ত্যা মামলা দায়ের করেন। এ মামলায় ১২ আসামিসহ ১৩ জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।তাদের মধ্যে ১০ জনকে পাঁচ দিনের রিমান্ডে নেওয়া হয়েছে। এ ১৩ জনই বুয়েট শাখা ছাত্রলীগের নেতাকর্মী।

এদিকে ঘটনার পর সোমবার থেকেই আন্দোলন করে আসছেন শিক্ষার্থীরা। হত্যাকাণ্ডের পর থেকে উপাচার্য শিক্ষার্থীদের সামনে না আসায় ক্ষোভ জানান শিক্ষার্থীরা। পরে মঙ্গলবার বিকেল ৫টার মধ্যে উপাচার্য সশরীরে এসে এ বিষয়ে জবাবদিহি না করলে কঠোর কর্মসূচি দেওয়ার হুঁশিয়ারি দেন তারা।

এরপর সন্ধ্যা ৬টার পর উপাচার্য শিক্ষার্থীদের সামনে আসেন। এ সময় শিক্ষার্থীদের সামনে এসে তোপের মুখে পড়েন উপাচার্য। তারা ভিসিকে বলেন, ‘এটা একটা খুন, আপনাকে স্বীকার করতে হবে’। এদিন উপাচার্যকে প্রায় ৪০ মিনিট অবরুদ্ধও করে রাখেন শিক্ষার্থীরা।

এদিকে আববার হত্যায় মঙ্গলবার সন্ধ্যা পর্যন্ত মোট ১৩ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন ডিএমপির মিডিয়া অ্যান্ড পাবলিক রিলেশন্স বিভাগের উপ-কমিশনার (ডিসি) মাসুদুর রহমান।

প্রজন্মনিউজ২৪/শাহরিয়ার জাহিদ

পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন



আরো সংবাদ