সাত লাখ মানুষের মৃত্যুর কারণ ব্রয়লার মুরগি

প্রকাশিত: ২৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ০১:০৩:৩৫

হরিনাকুন্ডি প্রতিনিধি: অবাক করার মত ব্যাপার,মাত্র পাঁচ সপ্তাহেই ব্রয়লার মুরগির বাচ্চা প্রাপ্তবয়ষ্ক হয়ে যায় । ১৮০০ গ্রাম ম্যাশ খাওয়ালেই নিট মাংস দুই কেজি ওজনের মুরগি জবায়ের আগে ম্যাশ খাচ্ছে সাড়ে ৩  কেজি  খাদ্য?

রহস্যটা কি? ম্যাশের সঙ্গে  মুরগি । একাধিক গবেষণায় একথা প্রমাণিত হয়েছে, বেশি মাংস পাওয়ার লোভে মুরগিকে খাওয়ানো হচ্ছে অ্যান্টিবায়োটিক।

এই লোভে যেভাবে মুরগিদের মোটা করা হয় তা একেবারেই স্বাস্থ্যকর নয়। এসব মুরগি খেলে শরীরে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কমে যায় এবং ক্যান্সার দানা বাঁধে শরীরে।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রসায়ন বিভাগের অধ্যাপক আবুল হোসেন তার গবেষণায় দেখতে পান প্রতি ১০০০ গ্রাম মুরগীর মাংসে ক্রমিয়াম আছে ৩৫০মাইক্রোগ্রাম। হাড়ে ক্রমিয়াম আছে ২০০০ মাইক্রো গ্রাম।

কলিজায় ক্রমিয়াম আছে ৬১২ মাইক্রো গ্রাম, মগজে ৪৫২০ ও রক্তে আছে ৭৯০ মাইক্রো গ্রাম। ওয়ার্ল্ড হেলথ অর্গানাইজেশন (ডব্লিওএইচও)-এর মতে, একজন মানুষ ৩৫ মাইক্রোগ্রাম ক্রমিয়াম গ্রহণ করতে পারে।

এর বেশি হলে তা দেহের জন্যে ক্ষতিকর। আমরা যদি ২৫০গ্রাম ওজনের এক টুকরা মাংস খাই তবে আমদের দেহে প্রবেশ করছে ৮৭.৫ মাইক্রোগ্রাম ক্রমিয়াম যা অনেক বেশি

পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন



আরো সংবাদ