"ভাঙ্গা রাস্তা, ভোগান্তিতে সাধারণ জনগণ"

প্রকাশিত: ২০ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ১১:১৯:১৬

মো: ফরহাদ হোসেন নীলফামারী :: রামগঞ্জ বাজার থেকে নীলফামারী যাওয়ার ৭ কিলোমিটার  রাস্তাটি বেহাল দশার জন্য চলাচলের বিঘ্ন ঘটছে। সামান্য বৃষ্টি হলেই অনেক জায়গায় জলাবদ্ধতা দেখা যায়। ভাঙ্গা রাস্তায় ছোট গাড়ি চলাচল করা ধীরে ধীরে অসম্ভব হয়ে পড়ছে। ফলে আশেপাশের এলাকাবাসীকে চরম দুর্ভোগে পড়তে হচ্ছে।

এই ভাঙ্গা রাস্তা দিয়েই প্রতিদিন ঝুকি নিয়েই মালবাহী ট্রাক, পিকাপ, সিএনজিচালিত অটোরিকশা ইজি বাইকসহ বিভিন্ন ধরনের যানবাহন চলাচল করে থাকে। ভাঙ্গা যায়গা গুলোতে প্রায়ই ছোট বড় দুর্ঘটনা ঘটে থাকে। যার কারনে এলাকাবাসী রাস্তা মেরামতের দাবি যানাচ্ছে।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, রামগঞ্জ থেকে নীলফামারী শহরে যাওয়ার যে রাস্তাটি সেটি চলাচলের অযোগ্য হয়ে পরছে। রাস্তাটি টুপামারী বাজার ঢোকতে ব্রিজের সামনের ও বাজারে হাই স্কুলের সামনেও ভাঙ্গা গর্ত রয়েছে, এতে শিক্ষক শিক্ষার্থী ও সাধারণ জনগণের অনেক ভোগান্তিতে পরতে হচ্ছে।  টুপামারী হাই স্কুলের সহকারী শিক্ষক মোঃ আক্তারুল হক রানা বলেন, একটু বৃষ্টি হলেই স্কুলের সামনে ভাঙ্গা রাস্তায় অনেক পানি জমে থাকে এবং সব পানি স্কুলের ভিতর দিয়ে যায় এতে আমাদের ও শিক্ষা র্থীদেরও অনেক ভোগান্তিতে পরতে হয়। তিনি আরো বলেন এই রাস্তা দ্রুত মেরামতের জন্য আমরা যোড় দাবি যানাচ্ছি।

দশম শ্রেণির ছাত্র সুমন ইসলাম বলেন, স্কুলের সামনে ভাঙ্গা থাকায় স্কুল ছুটির সময় আমাদের বেশি সমস্যা হয়। বৃষ্টি হলেই রাস্তায় পানি বেজে থাকে এতেও আমাদের সমস্যা হয়।

টুপামারী বাজারের রিদয় সরকার বাপ্পি বলেন, বাজারের মাঝে ও স্কুলের সামনে রাস্তা এতটাই খারাপ যে একটু বৃষ্টি হলেই সেখানদিয়ে একহাটু পানি জমেযায়। এতে অনেকেই বুঝতে পারেনা সেখানে কতটা গর্ত আর গাড়ি চালাতে গিয়েই ঘটে যায় দুর্ঘটনা। তাই সাধারণ জনগণ হিসেবে আমিও এই রাস্তা মেরামতের দাবি যানাচ্ছি।

অটোরিকশা চালক মোঃ আব্দুল আজিজ বলেন, রামগঞ্জ থেকে নীলফামারী যাওয়ার প্রধান যে সড়কটি এটা এতটাই খারাপ যে বিভিন্ন স্থানে ছোট বড় গর্তের কারনে প্রায়ই দুর্ঘটনা ঘটে। তিনি আরো বলেন, এসব রাস্তা দিয়ে গাড়ি চালাতে গিয়ে গাড়িও খুব দ্রুত নষ্ট হয়ে যায়। তিনি ভাঙ্গা রাস্তা দ্রুত সংস্কারের দাবি জানিয়েছেন।

 এলাকাবাসী ও শিক্ষক শিক্ষার্থী সবাই দুর্ভোগ লাঘবের জন্য এসব রাস্তা দ্রুত মেরামতের দাবি যানিয়েছেন।

প্রজন্মনিউজ২৪/রেজাউল

 

 

 

              

              

পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন



আরো সংবাদ