নিয়মের তোয়াক্কা নেই এসি বাসে

প্রকাশিত: ৩০ অগাস্ট, ২০১৯ ১০:৫৮:৩১

রাজধানীসহ সারা দেশে চলাচলকারী বাস-মিনিবাসের ভাড়া সরকার নির্ধারণ করে দিলেও তার আওতায় নেই শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত বাস, এই সুযোগে নিজেদের ইচ্ছেমতো ভাড়া আদায় করছে ক্রমশ ঢাকায় জনপ্রিয় হয়ে ওঠা এই সেবা দাতা কোম্পানিগুলো।

যাত্রী স্বার্থ বিবেচনার বাইরে গিয়ে কোম্পানিগুলো মনমতো ভাড়া আদায়ের বিষয়টি স্পষ্ট হয়ে ওঠে একই রুট, একই দূরত্বে চলাচলকারী রাষ্ট্রীয় পরিবহন সংস্থা বিআরটিসির সঙ্গে অন্যগুলোর ভাড়ার ব্যবধানে।

কিলোমিটারের হিসাবে সবচেয়ে বেশি ভাড়া নেওয়া হয় গুলশান-বনানী এলাকার ঢাকা চাকায়। এর বাইরে এসি বাসের সেবাদাতা প্রায় সবকোম্পানির বিরুদ্ধে যাত্রীদের অভিযোগ, অনেক জায়গায় স্টপেজ থাকলেও সেভাবে ভাড়া নির্ধারণ না করে অল্প দূরত্বের জন্যও বেশি টাকা গুণতে হচ্ছে তাদের।

গণপরিবহনের সংকটের এই শহরে ওই সব বাস কোম্পানির কাছে ‘জিম্মি’ হয়ে আছেন অভিযোগ করে ভাড়া ঠিক করে দিতে সরকারের কাছে দাবি জানিয়েছেন যাত্রীদের কয়েকজন।

তবে তাতে আগ্রহী নয় বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন কর্তৃপক্ষ-বিআরটিএ। সংস্থার পরিচালক (রোড সেফটি) মাহবুব-ই-রব্বানী বলছেন, এটা বিশেষ সেবা, এখানে নিয়ম-কানুন আরোপ করতে গেলে তারা চালাতে পারবে না। সারা দেশে শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত বাসের সংখ্যার কোনো হিসাব পাওয়া যায়নি বিআরটিএ থেকে।

তবে বাংলাদেশ-বাস ট্রাক ওনার্স এসোসিয়েশনের হিসেবে দূরপাল্লার রুটে শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত বাস আছে কয়েকশ। আর বিআরটিসির বহরে নতুন পুরাতন মিলিয়ে শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত বাসের সংখ্যা ৪১৩টি। রাজধানী ও রাজধানীর আশপাশের কয়েকটি রুটে এসব বাস চলাচল করে।

রাজধানীতে মতিঝিল-আবদুল্লাহপুর রুটে গ্রিন ঢাকা, মিরপুর ডিওএইচএস-কারওয়ানবাজার রুটে ট্রাস্ট ট্রান্সপোর্ট সার্ভিস, গুলশান এলাকায় ঢাকা চাকা ও গুলশান চাকা, মতিঝিল-সাভার রুটে লাল সবুজ, মতিঝিল-মানিকগঞ্জ রুটে মানিকগঞ্জ এসি লিংক এবং ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ রুটে শীতল পরিবহনের শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত বাস চলে। তবে এসব বাসের সংখা কত তা জানা যায়নি।

কিলোমিটার প্রতি ভাড়া হিসাব করে দেখা গেছে, সবচেয়ে কম ভাড়া বিআরটিসির শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত বাসে। সবচেয়ে বেশি ভাড়া ঢাকা চাকা, গুলশান চাকা ও গ্রিন ঢাকা পরিবহনের।

প্রজন্মনিউজ/দেলাওয়ার হোসাইন।

    

    

    

 

 

 

 

পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন



আরো সংবাদ














ব্রেকিং নিউজ