অগ্রগতি নেই মেট্রোরেল প্রকল্পের

প্রকাশিত: ২৩ অগাস্ট, ২০১৯ ১২:২৩:১৫ || পরিবর্তিত: ২৩ অগাস্ট, ২০১৯ ১২:২৩:১৫

ঢাকাবাসীর স্বপ্নের মেট্রোরেল প্রকল্পের কাজ শুরু হয়েছে ২০১২ সালের জুলাই মাসে। দেখতে দেখতে গড়িয়েছে অনেকটা সময়। সব বাধা জয় করে এগিয়ে চলেছে মেট্রোরেলের কাজ। তবে, প্রকল্পের অগ্রগতি মোটেও আশানুরূপ নয়।

উত্তরা থেকে আগারগাঁও পর্যন্ত উড়ালপথ ও স্টেশন নির্মাণের কাজ শেষ হওয়ার কথা ছিল ২০১৯ সালের জুনে। তবে, সে অবস্থান থেকে সরে এসেছে সরকার। স্বাধীনতার ৫০ বছর পূর্তিতে ২০২১ সালের বিজয় দিবসে বাংলাদেশের প্রথম মেট্রোরেলের পুরো অংশটিই আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্বোধনের পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে।

ওই বছরের ১৬ ডিসেম্বরই উত্তরা তৃতীয় পর্ব থেকে মতিঝিল পর্যন্ত ২০ দশমিক ১০ কিলোমিটার উড়াল রুট খুলে দেওয়া হবে বলে জানিয়েছে মেট্রোরেল প্রকল্পের বাস্তবায়নকারী সংস্থা ঢাকা ম্যাস ট্রানজিট কোম্পানি লিমিটেড (ডিএমটিসিএল)। সব মিলিয়ে চলতি বছরের জুলাই মাস পর্যন্ত প্রকল্পের মোট অগ্রগতি হয়েছে ৩৪ দশমিক ৫৮ শতাংশ। প্রকল্পের মোট ব্যয় ২১ হাজার ৯৮৫ কোটি টাকার মধ্যে জাপান সরকারের উন্নয়ন সংস্থা জাইকা ঋণ দিচ্ছে ১৬ হাজার ৫৯৪ কোটি ৫৯ লাখ টাকা। এ পর্যন্ত ব্যয় হয়েছে মাত্র ৭ হাজার ৬০৪ কোটি টাকা।

দীর্ঘ ছয় মাস পর প্রকল্পের ধীর অগ্রগতি তদন্তে মাঠে নামছে পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ের বাস্তবায়ন, পরিবীক্ষণ ও মূল্যায়ন বিভাগ (আইএমইডি) টিম। চলতি বছরের ২৪ আগস্ট আইমইডির মহাপরিচালক (অতিরিক্ত) মো. কামরুজ্জামানের নেতৃত্বে মেট্রোরেল প্রকল্প এলাকা সরেজমিনে পরিদর্শন করা হবে।

আইমএমইডি সূত্র জানায়, প্রকল্পের অগ্রগতি বৃদ্ধি ও পরিকল্পনা অনুযায়ী কাজ হচ্ছে কি-না দেখতেই মাঠে নামছে আইমইডি। প্রকল্প এলাকায় সাধারণ মানুষের ভোগান্তি হচ্ছে কি-না, তাও খতিয়ে দেখা হবে। মেট্রোরেল প্রকল্প প্রতি তিন মাস পর পর পরিদর্শন করার কথা আইএমইডির। কিন্তু, দীর্ঘ ছয় মাস পর পরিদর্শনে যাচ্ছে তারা। সবশেষ চলতি বছরের মার্চে মেট্রোরেল প্রকল্প পরিদর্শন করেছিল আইএমইডি।

প্রজন্মনিউজ/দেলাওয়ার হোসাইান।

 

পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন



আরো সংবাদ