প্রিয়া সাহার আত্মপক্ষ সমর্থনের সুযোগ রয়েছে, মিলারকে কাদের

প্রকাশিত: ২১ জুলাই, ২০১৯ ০৬:৪৬:৪৩ || পরিবর্তিত: ২১ জুলাই, ২০১৯ ০৬:৪৬:৪৩

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের মার্কিন রাষ্ট্রদূত আর্ল রবার্ট মিলারকে বলেছেন, ‘মিসেস প্রিয়া সাহা কোন পরিপ্রেক্ষিতে মার্কিন প্রেসিডেন্টের কাছে এমন অভিযোগ করেছেন বা তাঁর বক্তব্যের মর্মার্থ দেশে ফিরে এসে নিশ্চয়ই দেশবাসীর কাছে পরিষ্কার করবেন। প্রিয়া সাহার আত্মপক্ষ সমর্থনের সুযোগ রয়েছে।’

আজ রোববার মার্কিন রাষ্ট্রদূত রবার্ট মিলার সচিবালয়ে ওবায়দুল কাদেরের সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ করতে আসেন। এ সময় ওবায়দুল কাদের প্রিয়া সাহা সম্পর্কে মার্কিন রাষ্ট্রদূতকে এ কথা বলেছেন। সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয় থেকে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ কথা বলা হয়েছে।

বিজ্ঞপ্তিতে আরো বলা হয়, ‘সম্প্রতি বাংলাদেশের একজন নাগরিক মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রপতির নিকট দেশে সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের বিষয়ে অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী এবং বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের এমপি বলেছেন, মিসেস প্রিয়া সাহা কোন পরিপ্রেক্ষিতে এমন অভিযোগ করেছেন বা তার বক্তব্যের মর্মার্থ দেশে ফিরে এসে নিশ্চয়ই দেশবাসীর কাছে পরিষ্কার করবেন।’

মন্ত্রী মার্কিন রাষ্ট্রদূতকে আরো বলেন, ‘প্রিয়া সাহার আত্মপক্ষ সমর্থনের সুযোগ রয়েছে। বিষয়টি পরিষ্কারভাবে ব্যাখ্যা করার আগ পর্যন্ত তাঁর বিরুদ্ধে কোনো আইনানুগ ব্যবস্থা না নেওয়ার নির্দেশনা দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী।’

বিজ্ঞপ্তিতে আরো বলা হয়েছে, ‘প্রিয়া সাহা প্রসঙ্গে বাংলাদেশ সরকারের অবস্থানের বিষয়ে মার্কিন রাষ্ট্রদূত ইতিবাচক মনোভাব ব্যক্ত করেন। সাক্ষাতে দুই দেশের বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক এবং অর্থনৈতিক সমৃদ্ধি জোরদারের ওপর গুরুত্বারোপ করা হয়।’

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প গত ১৭ জুলাই হোয়াইট হাউসে তাঁর কার্যালয়ে ধর্মীয় স্বাধীনতা ও সহিষ্ণুতার জন্য বিশ্বের বিভিন্ন ধর্মীয় নেতা ও প্রতিনিধিদের সঙ্গে কথা বলেন। এতে বাংলাদেশি পরিচয় দিয়ে এক নারী ট্রাম্পকে বলেন, ‘আমি বাংলাদেশ থেকে এসেছি। এখানে (বাংলাদেশে) প্রায় ৩৭ মিলিয়ন (তিন কোটি ৭০ লাখ) হিন্দু, বৌদ্ধ, খ্রিস্টান ডিসঅ্যাপেয়ার (নিখোঁজ) হয়ে গেছে। দয়া করে আমাদের সাহায্য করুন। আমরা আমাদের দেশে থাকতে চাই। এখনো সেখানে (বাংলাদেশে) ১৮ মিলিয়ন (এক কোটি ৮০ লাখ) সংখ্যালঘু মানুষ রয়েছে। আমার অনুরোধ, দয়া করে আমাদের সাহায্য করুন। আমরা আমাদের দেশ ছাড়তে চাই না। শুধু আমাদের (বাংলাদেশে) থাকতে সাহায্য করুন। আমি আমার বাড়ি হারিয়েছি। তারা আমার বাড়ি পুড়িয়ে দিয়েছে। তারা আমার জমি কেড়ে নিয়েছে। কিন্তু কোনো বিচার হয়নি।’

এ সময় ট্রাম্প জানতে চান, ‘কারা জমি দখল করেছে? কারা বাড়ি দখল করেছে?’ জবাবে ওই নারী বলেন, ‘মুসলিম মৌলবাদী গ্রুপ এগুলো করছে। তারা সব সময় পলিটিক্যাল শেল্টার (রাজনৈতিক ছত্রছায়া) পায়।’

প্রজন্মনিউজ২৪/নাবিল

পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন





ব্রেকিং নিউজ