দিনাজপুরে নদীর পানি বেড়ে বিভিন্ন এলাকায় বন্যার সৃষ্টি

প্রকাশিত: ১৬ জুলাই, ২০১৯ ০৫:৩২:৪৪

মোঃ শরিফুজ্জামান, দিনাজপুরঃ দিনাজপুরে নদীর পানি বেড়ে বিভিন্ন এলাকায় বন্যা শুরু হয়েছে। দুপুরের মধ্যে নদীর পানি আরো বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা করছেন পানি উন্নয়ন বোর্ডের কর্মকর্তারা। পানি বেড়ে যাওয়ার ফলে নতুন নতুন এলাকা প্লাবিত হয়েছে, ডুবে গেছে নতুন আমন ধানের চারা।

দিনাজপুর পানি উন্নয়ন বোর্ডের সার্ভেয়ার মো. মাহাবুব আলম জানান, জেলার প্রধান ৩টি নদীর পানি বিপদসীমার খুব কাছাকাছি অবস্থান করছে। পানি বৃদ্ধি অব্যাহত থাকলে দিনের মধ্যে বিপদসীমা অতিক্রম করতে পারে।

দিনাজপুর শহরের পাশ দিয়ে প্রবাহিত পুনর্ভবা নদীর ৩৩ দশমিক ৫০০ মিটার বিপদসীমার বিপরীতে বর্তমানে পানির স্তর রয়েছে ৩২ দশমিক ২০০ মিটার। আত্রাই নদীর ৩৯ দশমিক ৬৫০ মিটারের বিপদসীমার বিপরীতে বর্তমানে ৩৯ দশমিক ৩৭০ মিটার ও ছোট যমুনা নদীর ২৯ দশমিক ৯৫০ বিপদসীমার বিপরীতে ২৮ দশমিক ৪০০০ মিটারে অবস্থান করছে।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে, রাতের মধ্যে নদীগুলোর পানি অস্বাভাবিক ভাবে বেড়ে গেছে। শহরের বিভিন্ন এলাকা যেমন মাঝাডাঙ্গা, উত্তর খালপাড়া ও পশ্চিম খালপাড়ার কিছু কিছু বাড়িতে ও কিছু কিছু উপজেলায় বিশেষ করে চিরিরবন্দর উপজেলায় সবচেয়ে বেশি পানি প্রবেশ করেছে। প্রায় ৩ শতাধিক পরিবারের ১ হাজার মানুষ পানিবন্দি হয়ে পড়েছে।

এসব পরিবারের মধ্যে দেখা গেছে খাদ্য ও বাসস্থানের সংকট। অনেকে আবার নিজ বাড়ি থেকে শহর রক্ষা বাঁধের ওপর আশ্রয় নিয়েছেন। অব্যাহত পানি বাড়ার ফলে মাঝাডাঙ্গা গ্রামের বেশিরভাগ নতুন আমন ধানের জমি ডুবে গেছে। পুনর্ভবা নদীর পানি বৃদ্ধির ফলে জেলার বিরল উপজেলার ১২ নম্বর রাজারামপুর ইউনিয়নের ৯ নম্বর ওয়ার্ডের প্রায় ৫০০ পরিবারের ১০ হাজার মানুষ পানিবন্দি হয়ে পড়েছেন।

এছাড়াও জেলার বীরগঞ্জ উপজেলার কয়েকটি গ্রামের কয়েক শতাধিক মানুষ ও চিরিরবন্দর উপজেলার গুচ্ছগ্রাম প্রকল্পের ১টি গ্রামের প্রায় ১৩০টি বাড়িতে পানি উঠেছে। সেখানকার প্রায় ৫০০ শতাধিক মানুষ পার্শ্ববর্তী একটি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে আশ্রয় নিয়েছেন।

দিনাজপুর জেলা ত্রাণ ও পুনর্বাসন কর্মকর্তা মো. মোখলেসুর রহমান জানান, জেলা প্রশাসনের কর্মকর্তাদের বন্যা ও প্রাকৃতিক দুর্যোগ সম্পর্কে প্রস্তুত রাখা হয়েছে। বন্যা পরিস্থিতি মোকাবেলায় জেলা প্রশাসনের একটি কন্ট্রোল রুম খোলা হয়েছে।

প্রজন্মনিউজ২৪/মামুন

 

 

 

 

পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন



আরো সংবাদ