সবচেয়ে ব্যয়বহুল হোটেল রুমে যা আছে

প্রকাশিত: ১৯ মে, ২০১৯ ১১:৫১:১৪

আপনি হয়তো নাও জেনে থাকতে পারেন, বিশ্বের সবচেয়ে ব্যয়বহুল হোটেল রুমটি লাস ভেগাসে। এখানে আপনি সেবা পাবেন, বলা যায় সেবার সর্বোচ্চটাই পাবেন। লাস ভেগাসের এই ক্যাসিনোয় যিনি প্রাণবন্ত কিছু সময় কাটাবেন, নিঃসন্দেহে তিনি বিশ্বের সবচেয়ে ব্যয়বহুল এই হোটেল রুমে বারবার ফিরে যেতে চাইবেন।

ভেগাসে ভ্রমণের কথা বলতে গেলে, পাল্ম ক্যাসিনো রিসোর্টটি এরই মধ্যে একটি প্রধান স্থানে পরিণত হয়েছে। এর রুমগুলো আকারে বেশ বড়। এই রিসোর্টটিতে সম্প্রতি চালু হওয়া ‘এমপেথি স্যুট’ বিশ্বের সবচেয়ে ব্যয়বহুল হোটেল রুম হিসেবে পরিচিতি পেয়েছে। এমপেথি স্যুটে আপনি যদি রাত্রিযাপন করতে চান তবে এক রাতের জন্য খরচ পড়বে ১ লাখ ডলার, যা বাংলাদেশি টাকায় প্রায় ৮৫ লাখ। আর দুই রাতের জন্য খরচ ২ লাখ ডলার।

এক-দুই রাতের জন্য এত খরচ? যা কিনা অনেকের সারাবছরের আয়ের থেকেও বেশি। এখন প্রশ্ন আসতেই পারে কেন আপনি বিশাল অঙ্কের বিনিময়ে এমন একটি কক্ষ ভাড়া নেবেন।

তো চলুন জেনে নিই, সবচেয়ে ব্যয়বহুল এই হোটেল রুমে কি আছে যার জন্য এত অর্থ গুণতে হচ্ছে। নিচে উল্লেখিত আলোচনা থেকে আপনি হয়তো আপনার মনের সেই প্রশ্নের জবাব পেয়েও যেতে পারেন!

সবচেয়ে বিলাসবহুল এই হোটেল রুমটি পাল্ম ক্যাসিনো রিসোর্সের একটি ভবনের ৩৪ তলায় অবস্থিত। এর আয়তন প্রায় ৯০০০ বর্গ ফুট। এই কক্ষটির মূল নকশা এবং সজ্জার কাজটি করেছেন যুক্তরাজ্যের ধনী শিল্পী ড্যামিয়েন হার্স্ট।

বিশাল আয়তনের এই কক্ষটির ১৩ সিট বারের ডাইনিং টেবিলের উপর রয়েছে একটি মার্লিনের কঙ্কাল এবং ট্যাক্সডার্মড মার্লিন। এছাড়া গেম রুমে রয়েছে দুটি হাঙ্গর। এসব দেখে বিভ্রান্ত হয়ে পড়লে চলবে না।

 

 

হার্স্টের সংযোজনের মধ্যে আরো রয়েছে হীরা খচিত বড় আকারের পিল ক্যাবিনেট। স্যুটে হার্স্টের কিছু পছন্দের মোটিভও রয়েছে- প্রজাপতি, ক্ষুদ্র দাগ, পিল (মনে করুন ভ্যালিয়াম এবং অ্যাডভিল)।

এছাড়াও এই কক্ষে থাকা ক্যালিফোর্নিয়ার রাজকীয় বিছানা এবং ম্যাসেজ রুম- দুটির সবকিছুই চমৎকার।

এই হোটেল রুমের অন্য সুযোগ-সুবিধাগুলো আপনাকে বিস্মিত করবে। অন্য সুযোগ-সুবিধাগুলোর মধ্যে আছে হিলিং সল্ট রুম, ওয়াক-ইন স্টিম শাওয়ার এবং জলথেরাপিযুক্ত টাব। যারা আরো চান তাদের জন্য এখানে আছে ব্যায়ামের নানাবিধ সরঞ্জামসহ ফিটনেস রুম।

নির্দিষ্ট দিন বা ছুটি শেষে যে কেউই তাদের রুম ছাড়তে বাধ্য। কিন্তু পাল্ম’র এমপেথি স্যুটের রেশটা অতিথির মাঝে থেকেই যায়। যার দরুন তাদের মন এখানে বারবার ছুটে আসতে চাইতেই পারে!

পাল্ম’র অতিথিরা ১০ হাজার ডলারের বিনিময়ে কিছু ভিআইপি সুবিধা পেতে পারেন। এগুলোর মধ্যে আছে- রিসোর্টের অন্য অংশের রেকর্ডিং স্টুডিও, নাইটক্লাব ও পার্ল কনসার্ট থিয়েটারে প্রবেশের সুযোগ। রুলেট, ক্যাভিয়ার, শ্যাম্পেন- বলা যায় আপনি যা চাইবেন পাল্ম এ তার সবই পাবেন। আর কেউ যদি যদি শহর ঘুরে বেড়াতে চান তবে বিলাসবহুল গাড়ির সেবা নিতে পারবেন। তাই আর দেরি কেন। সাধ্যের মধ্যে থাকলে ঝটপট নিয়ে ফেলুন এমপেথি স্যুটে রাত্রিযাপনের পরিকল্পনা।

তথ্যসূত্র: রিডার্স ডাইজেস্ট

পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন