এবার নিজের ছবির বিরোধিতায় শাকিব খান

প্রকাশিত: ১৬ মে, ২০১৯ ০৫:৪৩:৪৫

এবার ঈদুল ফিতরে দেশজুড়ে তিনটি ছবির মুক্তি চূড়ান্ত হয়েছে। ছবিগুলো হলো ‘পাসওয়ার্ড’, ‘নোলক’ ও ‘আবার বসন্ত’। এর মধ্যে ‘পাসওয়ার্ড’ ও ‘নোলক’ ছবির নায়ক শাকিব খান। শাকিব খানের ছবি মুক্তির আগে নীরব ঢালিউড খানিকটা সরব হয়ে ওঠে। আর উৎসবে শাকিব খানের ছবি থাকলে তো কথাই নেই। তাঁর লাখো ভক্ত থেকে শুরু করে হলমালিক, সিনেমাপ্রেমী দর্শকের মধ্যে সেই আলোচনা ছড়িয়ে পড়ে দেশজুড়ে। কিন্তু এবার শাকিব খানের দুটি ছবিকে কেন্দ্র করে ভিন্ন উত্তাপ ছড়াচ্ছে।

শাকিব খান চান, এই ঈদে ‘নোলক’ নয়, শুধু ‘পাসওয়ার্ড’ মুক্তি পাক। চার বছর পর নিজের প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান শাকিব খান ফিল্মস থেকে তৈরি হচ্ছে ছবিটি। তাই ‘পাসওয়ার্ড’ ছবি ছাড়া আর কোনো ছবি নিয়ে তিনি কথা বলছেন না। বরং শোনা যাচ্ছে, ‘নোলক’ ছবির মুক্তির সরাসরি বিরোধিতা করছেন। তবে শাকিব খানের ‘পাসওয়ার্ড’ ছবিকে ফাঁকা মাঠে ছেড়ে দিতে চান না ‘নোলক’ ছবির প্রযোজক সাকিব সনেট।

‘পাসওয়ার্ড’ ছবির এখনো তিনটি গানের শুটিং বাকি আছে। জানা গেছে, তা শেষ করার জন্য গতকাল বুধবার রাতে দল নিয়ে তুরস্কে গেছেন শাকিব খান। যাওয়ার আগে ‘নোলক’ নিয়ে জানতে চাওয়া হয় তাঁর কাছে। জানালেন, এই ঈদে ‘নোলক’ মুক্তি না পাক, এটাই তিনি চান। বললেন, ‘যদি “নোলক” ঈদে মুক্তি দেওয়া হয়, তাহলে সেটা হবে আত্মঘাতী সিদ্ধান্ত। কারণ, এর আগে ঈদে “শিকারি” ছবির সঙ্গে আমার আরও দুটি ছবি “মেন্টাল” ও “সম্রাট” এবং “নবাব” ছবির সঙ্গে আমার “রাজনীতি” মুক্তি না দেওয়ার জন্য অনুরোধ করেছিলাম। কিন্তু কোনো প্রযোজক শোনেননি। ফলে ছবিগুলো ছবি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। “শিকারি” আর “নবাব” কিন্তু সুপার হিট। তখন নিজের অভিজ্ঞতা থেকেই তাঁদের অনুরোধ করেছিলাম।’

শাকিব খান আরও বলেন, ‘আমি জানি, আমার অভিনীত কোন ছবির মধ্যে কী আছে। কোনটি উৎসবে মুক্তি পাওয়ার যোগ্য। তাই আমি বলব, “নোলক” এখন মুক্তি না দেওয়াই ভালো। যদি মুক্তি দেয়, তাহলে ছোট কিছু প্রেক্ষাগৃহ পাবে। তাতে কোনো লাভ হবে?’ এরই মধ্যে ঢাকা ও ঢাকার বাইরে উল্লেখযোগ্য ৬০টি প্রেক্ষাগৃহ ‘পাসওয়ার্ড’ ছবির জন্য বুকিং দিয়েছে। ঢাকার ছবির এই নায়ক আশা করছেন, ঈদে প্রায় দেড় শ প্রেক্ষাগৃহে ছবিটি মুক্তি পাবে।

এদিকে ‘নোলক’ ছবির পক্ষের বিভিন্ন ফেসবুক গ্রুপ, পেজ, ইউটিউবার আর ব্লগারদের নিয়ে একটি দল তৈরি করে প্রচারণা শুরু করেছে ছবির নায়িকা ববি। শাকিব খান ছাড়াই ‘নোলক’ ছবির প্রচারণা প্রসঙ্গে ববি বলেন, ‘শাকিব খান তাঁর কোনো ছবিতেই সেভাবে প্রচারে থাকেন না। “পাসওয়ার্ড” তাঁর নিজের প্রযোজনা প্রতিষ্ঠানের ছবি। তাই নিজের ছবি নিয়ে তাঁর কিছুটা উত্তেজনা আছে।’

শাকিব খানের মতে, ‘নোলক’ ঈদের ছবি না। ছবিটা ঈদের পরে মুক্তি দেওয়া হলো ভালো ব্যবসা করতে পারবে। এ ব্যাপারে ববি বলেন, ‘“নোলক” অবশ্যই উৎসবের ছবি। মৌলিক গল্পের বড় বাজেটের ছবি। ঈদে মুক্তি না দিলে প্রযোজক বড় অঙ্কের আর্থিক ক্ষতির মুখোমুখি হবেন। ঈদ ছাড়া অন্য কোনো সময় এই অর্থ তুলে আনা সম্ভব না। ঈদের সময় প্রেক্ষাগৃহে দর্শক বেশি আসবেন। আর এখানে কোনো প্রতিযোগিতা নেই। দুটি ছবিই মুক্তি পাক। দর্শক যে ছবি বেছে নেবেন, সেই ছবি এগিয়ে যাবে। এখানে বিরোধিতা করার কিছু নেই।’

‘নোলক’ ছবির নায়ক শাকিব খানের বিরুদ্ধে ছবির মুক্তির বিরোধিতা করার অভিযোগ করেছেন প্রযোজক সাকিব সনেট। তিনি বলেন, ‘“নোলক” তো শাকিব খানের আরেকটি ছবি। কেন যে সে সরাসরি মুক্তির বিরোধিতা করছেন, বুঝতে পারছি না। তিনি এই ছবির কোনো প্রচারণায়ও অংশ নিচ্ছেন না। এর আগে ঈদে শাকিব খানের একসঙ্গে তিনটি ছবি মুক্তি পেয়েছে। এখন প্রেক্ষাগৃহ বাঁচাতে বেশি বেশি ছবি লাগবে। তাতে প্রযোজকও বাঁচবে, প্রেক্ষাগৃহও বাঁচবে।’

কিন্তু চলচ্চিত্রপাড়ায় অনেকেই বলছেন, শেষ পর্যন্ত ঈদে ‘নোলক’ মুক্তি পাবে না। এ ব্যাপারে সাকিব সনেট বলেন, ‘শাকিব খানের লোকজন এ গুজব ছড়িয়ে এরই মধ্যে “নোলক” ছবির কয়েকটি প্রেক্ষাগৃহ নিয়ে গেছেন। আমি বলছি, “নোলক” মুক্তি পাবে। এটাই চূড়ান্ত কথা। প্রথম সপ্তাহে ৫০ থেকে ৬০টি প্রেক্ষাগৃহে ছবিটি মুক্তি দেব। আশা করছি দ্বিতীয় সপ্তাহে এই সংখ্যা বাড়বে।’

এদিকে ‘পাসওয়ার্ড’ ও ‘নোলক’ নিয়ে শাকিব-ভক্তদের মধ্যে উত্তাপ ছড়িয়েছে। ফেসবুকে শাকিব খানের বিভিন্ন গ্রুপে সেই প্রতিক্রিয়া দেখা যাচ্ছে। অনেক শাকিব-ভক্ত সরাসরি ‘নোলক’ ছবিকে আক্রমণ করছেন। আবার অনেকেই ঈদে দুটি ছবিই দেখার ব্যাপারে আগ্রহ প্রকাশ করেছেন।

প্রজন্মনিউজ২৪/মুজাহিদ

পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন