পরিচালক বিহীন শুটিং!

প্রকাশিত: ১৬ মে, ২০১৯ ০৩:০৩:৪৮

একটি চলচ্চিত্রের শুরু থেকে সমাপ্ত লেখা পর্যন্ত পুরোটাই পরিচালকের দায়। ভালো হলে পরিচালকের, সেটা খারাপ হলেও পরিচালকের। পরিচালক ছাড়া একটি শটও নেওয়া যাবে না। হোক সেটা মারামারি বা নাচের শুটিং। এগুলো তো সিনেমার অংশ’। কথাগুলো বলেন গুণী পরিচালক শাহিন সুমন। সম্প্রতি সময়ে বেশ কিছু চলচ্চিত্র শুটিংয়ে থাকছেন না পরিচালক। বিশেষ করে মারামারি বা নাচের শুটিংয়ে এমনটা বেশি দেখা যায়। বিষয়টি নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় হচ্ছে আলোচনা।

এ বিষয়ে শাহিন সুমন আরো বলেন, ‘এ বিষয়টি আগে হতো না। গত বছর থেকে শুনছি, গানের শুটিংয়ে পরিচালক থাকছেন না। অবশ্য এর অনেক কারণও থাকতে পারে। যেমন—দেশের বাইরে শুটিং করা অনেক খরচের বিষয়। সেখানে একজন মানুষ কম গেলে খরচ কিছুটা কমে। আবার কম সময়ে একটি ছবি শেষ করে ঈদের সময় মুক্তি দিতে গেলে এমনটা হতে পারে।

দেখা গেল ছবির সিক্যুয়েন্সের কাজ শেষ করে পোস্ট প্রোডাকশনের কাজ করছেন পরিচালক, অন্যদিকে গানের শুটিং হচ্ছে দেশের বাইরে, তিনি যেতে পারছেন না। এ বিষয়ে দেশের স্বনামধন্য নৃত্য পরিচালক মাসুম বাবুল বলেন, ‘করণ জোহর বা সঞ্জয় লীলা বনসালি কোনো দিন শুটিংয়ে অনুপস্থিত ছিলেন বলে আমি শুনিনি। বাংলাদেশে বদিউল আলম খোকন ছাড়া তো কোনো গানের শুটিং আমরা করিনি।

আরে নাচের শুটিং তো সিনেমার অংশমাত্র। আমি যখন একটি সিনেমার গানের শুটিং করি, তখন নাচটা আমার মতো করি। ক্যামেরায় ধারণ করি আমার মতো। তবে সেটা পরিচালকের চাওয়া পূর্ণ করি মাত্র। যিনি গল্পের মধ্যে গানটি ব্যবহার করবেন, তিনিই বলতে পারবেন লোকেশন, গেটআপ-মেকআপ ঠিক আছে কি-না। যে কারণে ছবির গানের শুটিংয়ে অবশ্যই পরিচালককে থাকতে হবে।

ছবি থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে যাচ্ছে গান, এমনটা দাবি করে মাসুম বাবুল বলেন, ‘হাফিজ উদ্দিন সাহেবের একটি ছবির গানের শুটিং করেছিলাম। ছবির নামটা মনে নেই। এডিটিংয়ে গিয়ে আমার মনে হলো কী যেন ঠিক নেই। তার পর বুঝতে পেরেছি, ছবির গল্পটা আমার মাথায় ছিল না। এর পর এমন ভুল আর হয়নি, ছবির গল্প, গানের আগে পরের সিক্যুয়েন্স শুনে-বুঝে, সেগুলো পরিচালকের সঙ্গে কথা বলে কাজগুলো করে থাকি। আর পরিচালক ছাড়া গানের শুটিং করলে তো মনে হবে ছবির মধ্যে একটা মিউজিক ভিডিও জুড়ে দেওয়া হয়েছে।

প্রজন্মনিউজ২৪/মামুন

পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন