বন্ধুদের মারধর ও ছুরিকাঘাতে কলেজছাত্র নিহত

প্রকাশিত: ১৫ মে, ২০১৯ ০৫:৩৩:৫৯

নোয়াখালীর বেগমগঞ্জ উপজেলার চৌমুহনী পৌরসভায় সহপাঠী ও বন্ধুদের দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষের সময় মারধর ও ছুরিকাঘাতে যোবায়ের নামে এক কলেজছাত্র নিহত হয়েছেন। এ সময় তার আরও কয়েকজন বন্ধু গুরুতর আহত হন। মঙ্গলবার (১৪ মে) রাত সাড়ে ১২টায় চৌমুহনীর আলীপুর নামক স্থানে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় পুলিশ আট জনকে আটক করেছে। তবে নিহত শিক্ষার্থীর পরিবারের দাবি, মাদক সেবনে বাধা দেওয়ায় তাকে হত্যা করা হয়েছে।

নিহত যোবায়ের নোয়াখালী সরকারি কলেজের একাদশ শ্রেণির ছাত্র। সে সেনবাগ উপজেলার বীজবাগ ইউনিয়নের কাজিরখিল গ্রামের মোশারফ হোসেনের ছেলে। আট বছর ধরে চৌমুহনীর আলীপুরে তারা ভাড়া বাসায় থাকেন। আটককৃতরা হলেন, মিরওয়ারিশপুর এলাকার আজিম হোসেনের ছেলে আবিদ হোসেন, তার সহযোগী ফাহিম, আশ্রাফ, জনি এবং বাকি ৪ জনের নাম ও পরিচয় জানা যায়নি।

এদিকে নিহতের বাবা মোশারফ হোসেন ও ভাই যুবরাজ অভিযোগ করেছেন, মাদক সেবনে বাধা দেওয়ায় যোবায়েরকে হত্যা করা হয়েছে। তারা এ ঘটনার সঠিক তদন্ত ও দোষীদের বিচার দাবি করেছেন।

বেগমগঞ্জ সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার শাহজাহান শেখ জানান, যোবায়ের হত্যার সঙ্গে জড়িতরা একে অপরের বন্ধু ও সহপাঠি। কিন্তু দীর্ঘদিন তাদের মধ্যে বিরোধ চলে আসছিল। এর জের ধরে মঙ্গলবার রাতে ঘটনাস্থলে উভয়পক্ষের মধ্যে বাদানুবাদ হয়ব। এক পর্যায়ে তারা সংঘর্ষে জড়ে পড়ে। এসময় যোবায়েরকে ছুরিকাঘাত করা হয়। পরে যোবায়েরকে উদ্ধার করে নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে নেওয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

তিনি আরও বলেন, ঘটনার সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে অভিযান চালিয়ে দুই জন ও নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে আসা আরও ছয় জনকে আটক করা হয়েছে। আটকদের জিজ্ঞাসাবাদ চলছে। এ ঘটনায় একটি মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

প্রজন্মনিউজ২৪/মুজাহিদ

পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন



আরো সংবাদ