নারায়ণগঞ্জে বৃদ্ধকে হত্যা

প্রকাশিত: ০৫ মে, ২০১৯ ০৬:২৮:৫১

নারায়ণগঞ্জের আড়াইহাজারে পূর্ব উলুকান্দি এলাকায় ৭০ বছরের বৃদ্ধ আমেনা বেগমকে হাত পা বেধেঁ আগুনে পুড়িয়ে হত্যা করেছে দুবৃত্তরা। শনিবার গভীর রাতে এ ঘটনা ঘটে। নিহতের স্বজনের দাবি নিহতের পরনে বেশ কিছু স্বর্ণালংকার ছিল। তা পাওয়া যাচ্ছে না। ধারনা করা হচ্ছে এই স্বর্ণালংকার নেওয়ার জন্যই বৃদ্ধা আমেনা বেগমকে শ্বাসরোধ করে হত্যার পর কাঁথা,বালিশে আগুন ধরিয়ে দেয় দুর্বৃত্তরা।

নিহতে ছোট ভাই আব্দুল হক জানান,‘শনিবার রাত দেড়টা দিকে উলুকান্দি গ্রামের আব্দুল হকের বাড়ির পাশে ছোট একটি ঘরে আগুন দেখতে পেয়ে পাশের বাড়ির এক নারী তাদের ডেকে তুলে। পরে নিহতের আত্মীয়-স্বজনরা দ্রুত ঘর থেকে বের হয়ে আমেনা বেগমের ঘরে ঢুকে পানি দিয়ে আগুন নেভায়। কিন্তু অনেক ডাকাডাকির পর আমেনা বেগম না উঠায় গায়ে হাত দিয়ে দেখতে পান সে মারা গেছে।ৎ

তার গলায় মশারি পেচানো এবং হাত পা কাপড় দিয়ে বাঁধা ছিল। তার পরনে যে সব স্বর্ণালংকার ছিল তা নেই। ধারনা করা হচ্ছে আমেনা বেগমকে হত্যা করে স্বর্ণলংকার নিয়ে তার ঘরের কাথা বালিশ ও কপড় চোপড় শরীরের উপর জড়িয়ে আগুন ধরিয়ে দেওয়া হয়। স্বামীর মৃত্যুর পর প্রায় ৪৫ বছর ধরে বাপের বাড়িতে বসবাস করে আসছিল আমেনা বেগম। এলাকায় তার কোন শত্রু ছিল না।

পরিবারের লোকজনের সঙ্গে মিলে মিশে জীবন-যাপন করছিলেন এই নারী। তার এক মাত্র মেয়ে আয়না বেগম আড়াইহাজারের ইজারবান্দিতে স্বামীর বাড়িতে থাকেন। নিহতের ভাতিজা ইলিয়াছ আলী জানান,আমার ফুপুর কোনও শত্রু ছিল না। রাত ১১টার দিকে আমার স্ত্রী একজনকে ফুপুর ঘরের সামনে দেখতে পায়। সে একজন নেশাগ্রস্ত লোক।

ধারণা করা হচ্ছে ফুপুর স্বর্ণালংকার নেওয়ার জন্য তাকে হত্যা করে লাশে আগুন ধরিয়ে দিয়েছে। এঘটনার পর নারায়ণগঞ্জের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আব্দুল্লাহ আল মামুনসহ পুলিশের কর্মকর্তারা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। তিনি বলেন, এ ঘটনায় নিহতের মেয়ে আয়না বেগম বাদী হয়ে মামলা দায়েরের প্রস্তুতি নিচ্ছে। পুলিশ ঘটনাটি তদন্ত করছে। যত দ্রুত সম্ভব অপরাধীদের আইনের আওতায় আনা হবে।

প্রজন্মনিউজ২৪/মুজাহিদ

পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন



আরো সংবাদ