এবার শপথ নিলেন বিএনপির জাহিদুর রহমান

প্রকাশিত: ২৫ এপ্রিল, ২০১৯ ০২:১৯:২৬

গণফোরামের দুই সংসদ সদস্যের পর এবার জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের নেতৃত্বদানকারী বিএনপির টিকেটে ঠাকুরগাঁও-৩ আসন থেকে নির্বাচিত জাহিদুর রহমান জাহিদ সংসদ সদস্য হিসেবে শপথ নিয়েছেন। আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে জাতীয় সংসদ ভবনে স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর কাছে বিএনপির প্রথম সংসদ সদস্য হিসেবে শপথ নেন জাহিদুর রহমান।

সংসদ সচিবালয়ের কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, জাহিদুরের চিঠির পরিপ্রেক্ষিতেই তাঁর শপথ সম্পন্ন হয়েছে। তিনি সকালে শপথ নেওয়ার আগ্রহ ব্যক্ত করে স্পিকারের কাছে চিঠি দেন। তবে দলীয় সিদ্ধান্তের বাইরে গিয়ে যাঁরা শপথ নেন, তাঁরা ‘জনদুশমন’ বলে উল্লেখ করেছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায়। সময়মতো তাঁদের বিচার হবে বলেও উল্লেখ করেন তিনি।

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আগে বিএনপি, গণফোরাম, নাগরিক ঐক্যসহ কয়েকটি দল নিয়ে আওয়ামী লীগবিরোধী জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট গঠিত হয়। ঐক্যফ্রন্ট থেকে মনোনয়নপ্রাপ্ত প্রায় সবাই বিএনপির ‘ধানের শীষ’ প্রতীক নিয়ে নির্বাচন করেন। নির্বাচনে বিএনপি থেকে ছয়জন ও গণফোরাম থেকে দুজনসহ মোট আটজন নির্বাচিত হন।

এর মধ্যে গণফোরামের সুলতান মোহাম্মদ মনসুর আহমদ ‘ধানের শীষ’ প্রতীক নিয়ে মৌলভীবাজারের একটি আসন থেকে এবং সিলেটের একটি আসন থেকে ‘উদীয়মান সূর্য’ প্রতীক নিয়ে নির্বাচিত হন মোকাব্বির খান। নির্বাচনের পর পরই ভোটে ব্যাপক কারচুপি আর অনিয়মের অভিযোগ এনে নির্বাচন বর্জনের ঘোষণা দেয় জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট। তাঁরা শপথ নিবেন না বলেও সিদ্ধান্ত নেন।

কিন্তু এর মধ্যে দলীয় সিদ্ধান্ত অমান্য করে গণফোরামের দুজন সংসদ সদস্য হিসেবে শপথ নেন। পরে তাঁদের দল থেকে বহিষ্কার করা হয়। সুলতান মনসুরকে ঐক্যফ্রন্টের স্টিয়ারিং কমিটি থেকেও সরিয়ে দেওয়া হয়। এবার জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের তৃতীয় এবং বিএনপির প্রথম সংসদ সদস্য হিসেবে শপথ নিলেন ঠাকুরগাঁও-৩ (রানীশংকৈল-পীরগঞ্জ) আসন থেকে নির্বাচিত জাহিদুর রহমান।

জাহিদুর ১৯৯১ সাল থেকে নির্বাচন করছেন। কিন্তু কোনোবারই তিনি পাস করতে পারেননি। এ নিয়ে জাতীয় সংসদের ৩০০ আসনের মধ্যে ২৯৫ জন শপথ নিলেন। এখন বাকি আছেন বিএনপির পাঁচ নির্বাচিত প্রতিনিধি। এবারের নির্বাচনে জাহিদুর রহমান ৮৮ হাজার ৫১০ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হন। রংপুর বিভাগে তিনিই বিএনপির একমাত্র নির্বাচিত প্রতিনিধি।

তাঁর নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ছিলেন স্বতন্ত্র প্রার্থী মো. ইমদাদুল হক। তিনি ৮৪ হাজার ৩৮৫ ভোট পান। অন্যদিকে আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন মহাজোটের প্রার্থী মো. ইয়াসিন আলী নৌকা মার্কায় ৩৮ হাজার ৬৩ ভোট পেয়ে তৃতীয় হন। আর জাতীয় পার্টির প্রার্থী হাফিজউদ্দিন আহম্মেদ লাঙ্গল প্রতীকে পান ২৭ হাজার ১৮২ ভোট।

প্রজন্মনিউজ২৪/মামুন

পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন





ব্রেকিং নিউজ