খুলনায় চাঁদাবাজি মামলায় দুই এএসআই আটক

প্রকাশিত: ২৪ এপ্রিল, ২০১৯ ০৩:৫০:৪১

 

 

মোঃ মুস্তাইন কবির, খুলনা : খুলনা মহানগরীর নিরালা প্রান্তিকা আবাসিক এলাকায় একটি বাড়িতে নারী দিয়ে ফাঁসিয়ে এক যুবককে আটকে রেখে চাঁদাবাজির অভিযোগে সদর থানার এএসআই সিফাত, সোনাডাঙ্গা থানার এএসআই মিরান ও ফাতেমা নামের এক নারীকে আটক করেছে পুলিশ।

এ ঘটনায় ভুক্তভোগী যুবক মামলা দায়ের করবেন বলে নিশ্চিত করেছেন কেএমপি’র অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার শেখ মনিরুজ্জামান মিঠু।

তিনি জানান, নগরীর নিরালা প্রান্তিকা আবাসিক এলাকার ৪নং রোডের একটি বাসায় মোঃ মনির হোসেনের স্ত্রী ফাতেমা বেগম ভাড়া থাকেন। গত ২২ এপ্রিল রাত সাড়ে ৯টার দিকে ওই বাড়িতে ভুক্তভোগী যুবক সঞ্জিৎ শীলকে এক যুবতী নারীকে দিয়ে ফাঁসিয়ে মোটা অংকের টাকা দাবি করে এএসআই সিফাত ও এএসআই মিরান।

আটককৃত যুবক ২৭ হাজার ৫শ’ টাকা  দিয়ে মুক্তি পান। পরবর্তীতে এ ঘটনার বিষয়ে তিনি সদর থানা পুলিশকে জানালে, পুলিশ ফাতেমা বেগমকে আটক করে। এরপর তার দেওয়া তথ্য মতে এএসআই সিফাত ও এএসআই মিরানকে আটক করা হয়।

উক্ত ঘটনার আগে ২০১৬ সালের ১৪ আগস্ট নিরালা আবাসিক এলাকার ১৭ নম্বর রোডের ২৯৫ নম্বর বাড়িতে নারী দিয়ে ফাঁসিয়ে চাঁদাবাজির অভিযোগে দাকোপের তিলডাঙ্গা ভূমি অফিসের কর্মকর্তা মোঃ রমজান আলী বাদী হয়ে ১৫ আগস্ট এসআই  সোহেল রানাসহ ৯ জনকে আসামি করে খুলনা সদর থানায় মামলা দায়ের করেন।

এছাড়া একই অভিযোগে নগরীর আপার যশোর রোডের এশিয়া স্টিল নামে স্টিল ফার্নিচারের মালিক রফিকুল ইসলাম ১৬ আগস্ট এসআই সোহেল রানাসহ ৬ জনকে আসামি করে সদর থানায় মামলা দায়ের করেন।যা এখনও পক্রিয়াধীন রয়েছে।

 

প্রজন্মনিউজ২৪/নাবিল

পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন



আরো সংবাদ














ব্রেকিং নিউজ