পাকিস্তানে ১৪ জন বাস যাত্রীকে হত্যা

প্রকাশিত: ১৮ এপ্রিল, ২০১৯ ০৩:৪৮:৫০

পাকিস্তানের বেলুচিস্তানের গোয়াদর জেলার মহাসড়কে বিভিন্ন বাস থেকে বেছে বেছে ১৪ যাত্রীকে নামিয়ে এনে গুলি করে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। বৃহস্পতিবার জেলার মাকরান কোস্টাল নামের মহাসড়কে এই মর্মান্তিক হত্যার ঘটনা ঘটে। তবে কারা এই ঘটনার সঙ্গে জড়িত তাৎক্ষণিকভাবে তা জানা যায়নি।

বেলুচিস্তানের এক উর্ধ্বতন পুলিশ কর্মকর্তার বরাত দিয়ে ডন পত্রিকা জানায়, বৃহস্পতিবার বেলুচিস্তানের বুজি টপ এলাকায় বেলা সাড়ে ১২টা থেকে ১টার মধ্যে মুখোশধারী ১৫-২০ জন ব্যক্তি করাচি-গোয়াদরের মধ্যবর্তী সড়কে এই হত্যাযজ্ঞ ঘটায়।

বন্দুকধারীরা বিভিন্ন বাস থামিয়ে যাত্রীদের আইডি কার্ড চেক করে। এভাবে খুঁজে খুঁজে মোট ১৬ জনকে বাস থেকে নামিয়ে আনে। এরপর খুব কাছ থেকে গুলি করে ১৪ জনকে হত্যা করে। বন্দুকধারীরা বাস থামিয়ে যাত্রীদের এভাবে খুঁজে খুঁজে মোট ১৬ জনকে বাস থেকে নামিয়ে আনে। এরপর তাদের হাত পা বেঁধে খুব কাছ থেকে গুলি চালানো হয়। এভাবে মোট ১৪ জনকে হত্যা করে বন্দুকধারীরা। তাই এই হত্যাযজ্ঞকে ‘টার্গেট কিলিং’ বলছে স্থানীয় পুলিশ।

এ ঘটনায় আহত হয়েছে আরো দুইজন। তাদের স্থানীয় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এই ঘটনায় গোটা এলাকায় আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে। ফলে এ নিয়ে পুলিশের কাছে মুখ খুলতে চাইছে না কেউ। এই হত্যার উদ্দেশ্য ও হত্যাকারীদের পরিচয় সম্পর্কে এখনও কিছু তথ্য উদ্ধার করতে পারেনি পুলিশ। তবে বেলুচিস্তানে ইসলামি জঙ্গি গোষ্ঠীগুলো সক্রিয় রয়েছে।

বেলুচিস্তানে এ ধরনের ঘটনা কোনো নতুন বিষয় নয়। এই প্রদেমের মাসতুং এলাকায় ২০১৫ সালে একই কায়দায় ১৯ বাসযাত্রীকে হত্যা করেছিলো সন্ত্রাসীরা।

এছাড়া গত সপ্তাহেই বেলুচিস্তানের রাজধানী কোয়েটায় হাজরা সম্প্রদায়ের ওপর যে হামলা চালানো হয়েছিলো তাতে কমপক্ষে ২০ জন নিহত হয়েছে।

প্রজন্মনিউজ২৪/মুজাহিদ

পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন



আরো সংবাদ