সোনাগাজীতে এবার কলেজছাত্রকে পুড়িয়ে হত্যার চেষ্টা

প্রকাশিত: ১১ এপ্রিল, ২০১৯ ০৫:২৪:৫৩

ফেনীর সোনাগাজীতে এবার এক কলেজছাত্রকে আগুনে পুড়িয়ে মারার চেষ্টা করেছে দুর্বৃত্তরা। হাত-পা-মুখ বেঁধে ওই কলেজছাত্রের গায়ে কেরোসিনও ঢালা হয়।গতকাল বুধবার রাতে সোনাগাজীর পূর্ব চরগণেশ এলাকার ৯ নম্বর ওয়ার্ডে এ ঘটনা ঘটে।পরে গুরুতর আহত অবস্থায় ওই ছাত্রকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।আহত যুবকের নাম আবু সালেহ মিম। তিনি ঢাকা পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটের তৃতীয় বর্ষের ছাত্র।

তিনি স্থানীয় মুক্তিযোদ্ধা আবুল কালামের ছোট ছেলে।আহত আবু সালেহর পরিবারের অভিযোগ, গতকাল সন্ধ্যায় বাড়ি থেকে বের হয়ে কিছুদূর যাওয়ার পর তিন থেকে চারজন যুবক সালেহর পরিচয় জানতে চায়। তাঁর (সালেহ) বাবা এলাকায় বাড়াবাড়ি করছে এমন কথা বলার পর তাঁর হাত-মুখ রশি ও কাপড় দিয়ে বেঁধে রাস্তার পাশে নিয়ে যায় তারা। এ সময় সালেহর শরীরে কোরোসিন ঢেলে দেয় ওই যুবকরা। ওই সড়ক দিয়ে কয়েকজন পথচারীর উপস্থিতি টের পেয়ে পালিয়ে যায় তারা।

পরে আহত অবস্থায় সালেহকে উদ্ধার করে প্রথমে ফেনী সদর হাসপাতালে ও পরে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যায় তাঁর পরিবার।সালেহর ভগ্নিপতি মো. সবুজ ইউএনবিকে বৃহস্পতিবার বলেন, ‘দুর্বৃত্তরা সাত/আটজন সবাই মুখোশ পরা ছিল। যার কারণে তাদের চেনা যায়নি।ফেনী সদর হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার আবু তাহের বলেন, ‘ছেলেটির অবস্থা আশঙ্কাজনক। শরীর না পুড়লেও আতঙ্কগ্রস্ত হওয়ায় অবস্থা আশঙ্কামুক্ত নয়।

তাই তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়েছে।ওই শিক্ষার্থীর ওপর হামলার কারণ জানাতে না পারলেও তাঁর বাবা মুক্তিযোদ্ধা আবুল কালাম বলেন, প্রতিবেশীদের সঙ্গে তাদের জায়গা-জমি সংক্রান্ত বিরোধ আছে। এ ব্যাপারে থানায় মামলার প্রস্তুতি নিচ্ছেন তিনি। সোনাগাজী থানার উপপরিদর্শক জসিম উদ্দিন জানান, ঘটনা তারা জেনেছেন। এ ব্যাপারে ভিকটিমের পরিবারের পক্ষ থেকে মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

প্রজন্মনিউজ২৪/মামুন

পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন



আরো সংবাদ














ব্রেকিং নিউজ