রাজনীতির সঙ্গে চলচ্চিত্রেও মনোযোগী : জ্যোতিকা জ্যোতি

প্রকাশিত: ০২ ফেব্রুয়ারী, ২০১৯ ১১:৩৪:৩২

ছোট ও বড় পর্দায় এরইমধ্যে নিজেকে একজন সুঅভিনেত্রী হিসেবে প্রমাণ করেছেন জ্যোতিকা জ্যোতি।চলচ্চিত্রে বেশ বেছে বেছে কাজ করেছেন তিনি। পাশাপাশি নাটকেও নিয়মিত ছিলেন এ অভিনেত্রী। তবে আপাতত নাটকে নেই তিনি। দীর্ঘদিন ধরে চলচ্চিত্রের কাজের জন্য ছোট পর্দার অভিনয় থেকে অনেকটাই দূরে রয়েছেন জ্যোতি। মাঝে অবশ্য গেল সংসদ নির্বাচনের সময় আওয়ামী লীগের পক্ষে রাজনীতিতে সক্রিয় ছিলেন। নির্বাচন পরে মহিলা সংরক্ষিত আসনের সদস্য হওয়ার লক্ষ্যে মনোনয়নও জমা দিয়েছেন।

রাজনীতির সঙ্গে সঙ্গে এখন ফের চলচ্চিত্রেও মনোযোগী হয়েছেন এ অভিনেত্রী।আগামী কিছুদিনের মধ্যেই কলকাতায় জ্যোতি অভিনীত ‘রাজলক্ষ্মী শ্রীকান্ত’ ছবিটি মুক্তি পেতে যাচ্ছে। প্রদীপ্ত ভট্টাচার্য পরিচালিত এ ছবিতে শ্রীকান্তের ভূমিকায় দেখা যাবে ঋত্বিক চক্রবর্তীকে। ছবিটি নিয়ে দারুণ আশাবাদী জ্যোতি। তিনি বলেন, ‘রাজলক্ষ্মী শ্রীকান্ত’ কলকাতার প্রোডাকশন। এটি ঐতিহাসিক গল্পের ছবি। আমি আমার শতভাগ দিয়েই রাজলক্ষ্মী চরিত্রটি করেছি।

তাই এ ছবির জন্য আলাদা রকমের একটি উত্তেজনা কাজ করছে আমার মধ্যে। মুক্তির পরই দর্শক সাড়াটা বুঝতে পারবো। এদিকে দেশে ‘মায়া-দ্য লস্ট মাদার’ চলচ্চিত্রটির কেন্দ্রীয় চরিত্রে অভিনয় করেছেন এ অভিনেত্রী। সরকারি অনুদানপ্রান্ত এ ছবিটি পরিচালনা করেছেন মাসুদ পথিক। এতে গ্রামবাংলার সংগ্রামী এক নারীর চরিত্রে দেখা যাবে তাকে। ছবিটি প্রসঙ্গে জ্যোতি বলেন, এ ছবিতে আমার চরিত্রটি অত্যন্ত চ্যালেঞ্জিং। গ্রামবাংলার একজন নারীর সংগ্রামের গল্প এখানে খুব সুন্দরভাবে তুলে ধরা হয়েছে। গল্প, চরিত্র এবং নির্মাণ- সবকিছুতেই দর্শক আলাদা কিছু পাবেন ছবিটিতে। এটা দর্শক দেখলেই বুঝতে পারবেন।

এদিকে এর বাইরে বর্তমানে আরও দুটি ছবির কাজ করছেন জ্যোতি। তবে ছবি দুটির বিষয়ে আপাতত কিছু বলতে চাইছেন না। কাজ শেষ হলেই বলবেন। জ্যোতি বলেন, যে সিনেমা দুটির শুটিং চলছে সেগুলোর পরিচালক দুজনেই কাজ শেষ না হওয়া পর্যন্ত বিস্তারিত কিছু প্রচার করতে চান না। তাই বিষয়টি এখনই বলতে চাই না। সবকিছুই পরে জানাবো। তাছাড়া এটা চমক হিসেবেও রাখতে চাই। এতটুকু বলবো, খুব ভালো কিছু হচ্ছে। আর এ বছরই আশা করছি আমার অভিনীত ছবিগুলো মুক্তি পাবে।

তাই বিষয়টি নিয়ে আমি বেশ এক্সাইটেড। চলচ্চিত্র নিয়ে সামনে পরিকল্পনা কি? জ্যোতি বলেন, আমার একটাই পরিকল্পনা। ভালো কিছু কাজ করে যেতে চাই। তার জন্যই কিন্তু আমি ছোট পর্দায় অভিনয় আর করছি না। পুরোপুরি চলচ্চিত্রে মনোযোগ দিয়েছি। আমি চেষ্টা করছি এমন কিছু করতে যেটা গতানুগতিক না হয়। ভিন্নধর্মী চরিত্র ও গল্পের ছবিতে কাজ করতে চাই। অল্প কাজ করব। কিন্তু তার মান ভালো হওয়া চাই। আমি যে দুটি ছবি করেছি ও যে দুটি ছবি করছি সেগুলোও এমনটাই।

সত্যি বলতে আর্ট কিংবা বাণিজ্যিক ছবি বলতে আমার কাছে কিছু নেই। ছবি আমার কাছে ছবিই। অভিনয়ের পাশাপাশি রাজনীতিও তো চলছে। দুটি কি একসঙ্গে চালিয়ে যাওয়া কঠিন না? জ্যোতি বলেন, আমি আসলে আমার এলাকার মানুষদের ভালোবাসা নিয়েই রাজনীতির মাঠে নেমেছি। আমি সব সময় আওয়ামী রাজনীতিতে বিশ্বাসী ছিলাম। এই নীতি নিয়েই রাজনীতির মাঠে নেমেছি। উদ্দেশ্য ভালো কাজ করা। পাশাপাশি চলচ্চিত্রেও আমার লক্ষ ভালো মানের কাজ করা। সেদিক থেকে সময়ই ঠিক করে দেবে আমি কখন কী করব। তবে আমি অভিনয় করেও রাজনীতিটা সব সময় চালিয়ে যেতে চাই।

প্রজন্মনিউজ২৪/ওসমান

পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন