সম্পদে এগিয়ে আওয়ামীলীগ এবং গ্রেফতার মামলায় এগিয়ে বিএনপি

প্রকাশিত: ০৮ ডিসেম্বর, ২০১৮ ০৪:৩২:৪৯

বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর অভিযোগ করেছেন, ২০০৯ সাল থেকে থেকে ২০১৮ সালের ৩০ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত বিএনপির নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে ৯০ হাজার ৩৪০ মামলা করা হয়েছে এবং এসব মামলায় আসামি হয়েছেন ২৫ লাখ ৭০ হাজার ৫৪৭ জন।

 ২০০৯ সাল থেকে ২০১৮ সালের ৩০ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত নিহত হয়েছেন বিএনপির ১ হাজার ৫১২ জন নেতাকর্মী। আইনশৃঙ্খলা বাহিনী দ্বারা নেতাকর্মীদের নিহত হওয়ার সংখ্যা ৭৮২ জন। মোট গুম হয়েছেন ১ হাজার ২০৪ জন। এর মধ্যে ৫৮১ জনকে পরবর্তী সময়ে (অনেকদিন পর) গ্রেফতার দেখানো হয়েছে। গুম হয়ে আছে এখন পর্যন্ত ৪২৩ জন। আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর হাতে গুরুতর জখম হয়েছেন ১০ হাজার ১২৬ জন। এই পরিসংখ্যানের রেকর্ড রয়েছে বলে জানান তিনি।

মির্জা ফখরুল জানান, ১ সেপ্টেম্বর থেকে গত এক মাসে বিএনপির নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে ‘গায়েবি’ মামলা করা হয়েছে ৪ হাজার ১৪৯টি। এসব মামলায় জ্ঞাত আসামির সংখ্যা ৮৬ হাজার ৬৯২ জন, অজ্ঞাত সংখ্যা ২ লাখ ৭৬ হাজার ২৭৭ জন। জ্ঞাত ও অজ্ঞাত মিলিয়ে ৩ লাখ ৬২ হাজার ৯৬৯ জন। এখন পর্যন্ত গ্রেফতার হয়েছে ৪ হাজার ৬৮৪ জন, রিমান্ডে নেওয়া হয়েছে ২৪৭ জনকে। 

নির্বাচন কমিশনের ওয়েবসাইটে প্রকাশিত তথ্যে দেখা যাচ্ছে গত পাঁচ বছরে আওয়ামী লীগের অনেক নেতার সম্পদ বেড়েছে কয়েক গুণ।

আওয়ামী লীগের নেতারা বলছেন তাদের দলের বিরুদ্ধে অপপ্রচার চালানোর জন্যই বিভিন্ন খবরের কাগজে এসব তথ্য নিয়ে ধারাবাহিক প্রতিবেদন করা হচ্ছে।

যদিও বাংলাদেশের নির্বাচনী আইন অনুযায়ী প্রার্থিদের সম্পদের বিবরনী সহ আট ধরনের তথ্য প্রকাশ করার বাধ্যবাধকতা রয়েছে নির্বাচন কমিশনের।

বিভিন্ন পত্রিকায় ক্ষমতাসীন আওয়ামীলীগের প্রার্থীদের সম্পদের বিবরণী প্রকাশিত হওয়ায় অস্বত্তি দেখা যাচ্ছে তাদের মধ্যে। কেই কেউ ক্ষুদ্ধ প্রতিক্রিয়াও দেখিয়েছেন।

 

প্রজন্ম নিউজ/শাহারিয়ার রহমান 

পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন



আরো সংবাদ














ব্রেকিং নিউজ