বিএনপির সংশোধিত গঠনতন্ত্র গ্রহণ না করতে হাইকোর্টের নির্দেশ

প্রকাশিত: ৩১ অক্টোবর, ২০১৮ ০৪:০২:১৭ || পরিবর্তিত: ৩১ অক্টোবর, ২০১৮ ০৪:০২:১৭

আজ ৩১ আক্টাবর  মোজাম্মেল হোসেনের করা এক রিট আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে বিচারপতি মো. আশফাকুল ইসলাম ও বিচারপতি মোহাম্মদ আলীর সমন্বয়ে গঠিতে বেঞ্চ এই আদেশ দেন।

বিএনপির সংশোধিত গঠনতন্ত্র গ্রহণ না করতে নির্বাচন কমিশনে (ইসি) করা কাফরুলের বাসিন্দা জনৈক মোজাম্মেল হোসেনের আবেদন এক মাসের মধ্যে নিষ্পত্তি করতে নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। এই সময়ের মধ্যে বিএনপির সংশোধিত গঠনতন্ত্র গ্রহণ না করতেও ইসিকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

আদালতে রিট আবেদনের পক্ষে শুনানি করেন আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সাবেক সদস্য অ্যাডভোকেট মোমতাজ উদ্দিন আহমেদ মেহেদী। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল আল আমিন সরকার ও সহকারী অ্যাটর্নি জেনারেল কে এম মাসুদ রুমী।

তার পরে মাসুদ রুমী বলেন, ‘বিএনপি কর্মী মোজাম্মেল হোসেন গতকাল ইসিতে একটি আবেদন দিয়ে বলেছে বিএনপির সংশোধিত গঠনতন্ত্র গ্রহণ না করতে। তিনি বলেছেন, এই গঠনতন্ত্র গ্রহণ করা হলে বিএনপিতে দুনীর্তিবাজ, অযোগ্য ব্যক্তিরা নেতা হওয়ার সুযোগ পাবেন। এ ছাড়া সংশোধনীটি সংবিধানের ৬৬(২) অনুচ্ছেদের সঙ্গে সাংঘর্ষিক। আদালত তার বক্তব্যে সন্তুষ্ট হয়ে রুল ও অন্তবর্তীকালীন আদেশ দিয়েছেন। ’

উল্লেখ্য বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া এবং ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান দণ্ডিত হওয়ার পর বিশেষ কাউন্সিলের মাধ্যমে দলটি গঠনতন্ত্রের ৭ ধারা সংশোধন করে। এতে সাত ধারায় উলে­খিত রাষ্ট্রপতি কর্তৃক দণ্ডিত, দেউলিয়া, উন্মাদ বলে প্রমাণিত, সমাজে দুর্নীতিপরায়ণ বা কুখ্যাত বলে পরিচিত ব্যক্তি দলের জাতীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য পদে কিংবা দলের জাতীয় সংসদ নির্বাচনের প্রার্থী পদের অযোগ্য বলে বিবেচিত হবে-এই কথাগুলো উঠিয়ে দিয়ে ‘প্রধান কর্মকর্তা হিসেবে দলের একজন চেয়ারম্যান থাকবেন। ৩০ বছরের কম বয়স্ক কোনো ব্যক্তি দলের চেয়ারম্যান হতে পারবেন না’-এই অংশটুকু যোগ করেন। পরবর্তীতে তা ইসিতে পাঠান।

প্রজন্মনিউজ২৪/মুহিব

পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন





ব্রেকিং নিউজ