দেশের টিভিতে বিদেশি ধারাবাহিক

প্রকাশিত: ৩০ অক্টোবর, ২০১৬ ০৪:২৪:১২

 

২০১৫ সালের ১৮ নভেম্বর আনুষ্ঠানিকভাবে সম্প্রচারে আসে দীপ্ত টিভি। বেশ কিছু নিয়মিত ধারাবাহিকের পাশাপাশি তারা প্রচার শুরু করে অটোমান সাম্রাজ্যের গল্প নিয়ে তুরস্কে নির্মিত ধারাবাহিক সুলতান সুলেমান। বাংলায় ডাবিং করা এই ধারাবাহিক অল্প সময়ে বেশ জনপ্রিয় হয়ে ওঠে এ দেশের দর্শকদের কাছে। অন্য চ্যানেলগুলোও গা ভাসাচ্ছে একই স্রোতে। বাংলা ভাষায় ডাবিং করে তারাও প্রচারের উদ্যোগ নিয়েছে বিদেশি বিভিন্ন ধারাবাহিক।
দীপ্ত টিভিতে চলছে সুলতান সুলেমান

কিছুদিন আগে মাছরাঙা টেলিভিশনে শুরু হয়েছে দ্য সোর্ড অব টিপু সুলতান। গাজী টিভিতে শুরু হতে যাচ্ছে আলিফ লায়লা। এই দুটি ধারাবাহিক নব্বইয়ের দশকে বাংলাদেশ টেলিভিশনে দেখানো হয়েছিল। এদিকে আজ থেকে আরটিভিতে শুরু হচ্ছে বাংলায় ডাবিং করা দক্ষিণ কোরিয়ান টিভি ধারাবাহিক সিনড্রেলার বোন। চ্যানেলটির অনুষ্ঠানপ্রধান দেওয়ান শামসুর বলেন, ‘আগে আমরা কোরিয়ান দুটি অনুষ্ঠান প্রচার করেছিলাম। এটাও একধরনের সাংস্কৃতিক আদান-প্রদান। ওই দেশও আমাদের অনুষ্ঠান প্রচার করবে।’
গাজী টিভিতে শুরু হতে যাচ্ছে আলিফ লায়লা

নভেম্বর মাসে একুশে টিভিতে শুরু হচ্ছে হাতিম ও সীমান্তের সুলতান নামে দুটি ডাবিংকৃত ধারাবাহিক। চ্যানেলটির অনুষ্ঠানপ্রধান ফারহানা নিশো জানিয়েছেন, ব্যবসায়িক স্বার্থ ও দর্শকের চাহিদার কারণেই বিদেশি এই ধারাবাহিকগুলো প্রচারের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। তবে তিনি মনে করেন, এই অনুষ্ঠানগুলো যাতে দেশি সংস্কৃতির সঙ্গে সাংঘর্ষিক না হয়, তেমনভাবে প্রচার হওয়া দরকার। জানা গেছে, আরও কয়েকটি চ্যানেল বাংলা ভাষায় ডাবিং করা বিদেশি ধারাবাহিক প্রচারের প্রস্তুতি নিচ্ছে।
এ প্রসঙ্গে নাট্যজন মামুনুর রশীদ বলেছেন, ‘এ ধরনের ধারাবাহিক প্রচার খুবই খারাপ। আমাদের ইন্ডাস্ট্রি দাঁড়ানোর এ এক বড় বাধা। আমার মনে হয়, এ ব্যাপারে সরকারের সিদ্ধান্ত নেওয়া জরুরি।’
 

আরটিভিতে শুরু হচ্ছে দক্ষিণ কোরিয়ান টিভি ধারাবাহিক সিনড্রেলার বোন

এসেছে আন্দোলনের ডাক
কয়েক দিন আগে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে বিদেশি ধারাবাহিক প্রচার বন্ধে আন্দোলনের ডাক দিয়েছিলেন বেশ কয়েকজন নাট্যনির্মাতা। আগামী ১৩ নভেম্বর দুটি চ্যানেলের সামনে মানববন্ধনের সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন তাঁরা। এ ব্যাপারে জানতে চাইলে ডিরেক্টরস গিল্ডের সভাপতি গাজী রাকায়েত বলেন, ‘শুধু বিদেশি ধারাবাহিক নয়, দেশের বাইরে থেকে আসা কলাকুশলীদের ব্যাপারেও কথা বলব আমরা। আমি মনে করি, বিদেশি ধারাবাহিক প্রচারের ফলে দেশের অভিনয়শিল্পী, নির্মাতা ও কলাকুশলীদের কাজ কমে যাচ্ছে। তাই সবার সঙ্গে বসেই আন্দোলনের ব্যাপারে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেব।’

পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন



আরো সংবাদ