শেষ বারের মত জিয়ারত করলেন বাবা মায়ের কবর

প্রকাশিত: ১৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০৬:৩৯:০৭ || পরিবর্তিত: ১৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০৬:৩৯:০৭

শাওন: স্টাফ রিপোর্টার: নদী ভাঙনের খবর শুনে ছুটে এসেছেন ব্যবসায়ী মো: ইউনুস আলী শেখ ।পরিবার নিয়ে থাকেন গোয়ালন্দে ।এসেই দ্রুত বাবা মায়ের কবর জিয়ারত করলেন তিনি ।জিয়ারত শেষে বলেন ,বড় ভাই চাচারা সবাই এখানে থাকতেন ।নদী ভাঙনের খবর পেয়ে ছুটে এসেছি  । মনে হয় আজকের মধ্যেই সব নিয়ে যাবে নদী । তাই শেষ বারের মত জিয়ারত করতে এসেছি ।

ইউনুস আলীর মত এমন হাহাকার  এখন ঐ এলাকাই জুড়ে ।

রাজবাড়ীর গোয়ালন্দ উপজেলার দৌলতদিয়া দেবগ্রাম ও ছোটভাকলা ইউনিয়নের পদ্মার তীরবর্তী এলাকায় ব্যপক ভাঙন দেখা দিয়েছে ।গত দুই সপ্তাহে প্রায় ৪০০ পরিবারের বসতভিটা টদ্মায় বিলীন হয়ে গেছে । ঘর হারিয়ে মানবেতর জীবন যাপন করছেন এলাকার মানুষ ।এছাড়াও ঝুকিতে বসবাস করছে ১ হাজার ৫০০ পরিবার ।

দৌলদিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান নজরুল ইসলাম মন্ডল বলেন , এক মাস ধরে নদী ভাঙন দেখা দিয়েছে । দুই সপ্তাহ থেকে ব্যপক ভাঙন শুরু হওয়ায় ২ নম্বর ওয়ার্ডঢল্লাপাড়া ও ৩ নং ওয়ার্ড আফছের শেখরপাড়ার ও লালু মন্ডলপাড়ার প্রায় ৩০০ পরিারের বসতভিটা বিলীন হয়ে গেছে । এবং ১০০ পরিবার ভাঙন থেকে রক্ষা পেতে অন্যএ চলে গেছে  ।এছাড়াও ১ হাজার ৫০০ পরিবার আতঙ্কে রয়েছে ।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো: আবু নাসার উদ্দিন বলেন দৌলতদিয়ায় বন্য ও নদী ভাঙনে ক্ষতিগ্রস্তদের ১ হাজার ৭০০ পরিবারের তালিকা পাওয়া গেছে । ইতিমধ্যে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের মধ্যে জিআরের চাল ও শুকনা খাবার বিতরন কার্যক্রম শরূ হয়েছে । সেই সাথে ভাঙন প্রতিরোধের বিষয়টি ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়েছে ।

প্রজন্মনিউজ২৪/শাওন

 

পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন



আরো সংবাদ














ব্রেকিং নিউজ