আতশবাজির আলোকছটায় ২০১৪ সাল বরণ

প্রকাশিত: ০৭ মে, ২০১৬ ১২:১৯:৫২

মুছে যাক গ্লানি, ঘুচে যাক জরা/ অগ্নি স্নানে শুচি হোক ধরা—এমন প্রত্যাশা সামনে রেখে খ্রিষ্টীয় ২০১৪ সালকে বরণ করে নিয়েছে বিশ্ববাসী। প্রচলিত ঐতিহ্য অনুযায়ী স্থানীয় সময় ১২টা এক মিনিটে দেশে দেশে উত্সবমুখর হয়ে ওঠে এই নববর্ষ বরণের আয়োজন।

আন্তর্জাতিক সময় অনুযায়ী ২০১৪ সালকে সবার আগে স্বাগত জানানোর সুযোগ পেয়েছে নিউজিল্যান্ডের অকল্যান্ডবাসী। অস্ট্রেলিয়ার সিডনি শহরের হারবার ব্রিজে আতশবাজি প্রদর্শনের মাধ্যমে শুরু হয় নববর্ষ উদযাপন।

নিউজিল্যান্ড ও অস্ট্রেলিয়ার পরপরই চীন, ইন্দোনেশিয়া ও সিঙ্গাপুরে শুরু হয় নববর্ষ বরণের উত্সব।

আতশবাজির আয়োজন ছিল রাশিয়ার মস্কোতেও। তবে দেশটিতে সাম্প্রতিক ঘটে যাওয়া বোমা হামলাকে মাথায় রেখে রেড স্কয়ারে রাখা হয়েছিল বাড়তি নিরাপত্তাব্যবস্থা।
বিশ্বরেকর্ড করার আকাঙ্ক্ষা নিয়ে দুবাইয়ের সাগর-সংলগ্ন এলাকার প্রায় ৫০ কিলোমিটার এলাকাজুড়ে আয়োজন করা হয়েছিল আতশবাজি উত্সবের। একই সঙ্গে ১২টা এক মিনিটে আলোয় ঝলমল করে ওঠে বিশ্বের সর্বোচ্চ ভবন বুর্জ খলিফা।

লন্ডনে আতশবাজির উত্সবরে পাশাপাশি ছিল পিচ ফল ও কলা দিয়ে তৈরি সৌরভ ছড়ানো মিষ্টান্ন। নানা রঙের আলোয় নতুন বছরকে স্বাগত জানিয়েছে প্যারিস ও বার্লিনবাসীও।

দেশে দেশে খ্রিষ্টীয় নববর্ষ ২০১৪ সাল বরণ। ছবি: রয়টার্সদেশে দেশে খ্রিষ্টীয় নববর্ষ ২০১৪ সাল বরণ। ছবি: রয়টার্সজাপানিরা নতুন বছরকে বরণ করেছে মন্দিরে মন্দিরে প্রার্থনার মধ্য দিয়ে, যা তাদের দীর্ঘদিনের ঐতিহ্য ।

নতুন বছরের প্রাক্কালে ইউক্রেনের রাজধানী কিয়েভের ইনডিপেনডেন্স স্কয়ারে প্রায় এক লাখ মানুষ সমবেত হয়ে জাতীয় সংগীত গেয়েছেন।

আজ উন্মুক্ত কনসার্ট ও লেজার শোর, আতশবাজির দক্ষিণ আফ্রিকার কেপ টাউনে নতুন বছরকে স্বাগত জানানো হবে। সেই সঙ্গে বিশেষ থ্রিডি শোয়ের মাধ্যমে স্মরণ করা হবে সদ্য প্রয়াত কিংবদন্তি নেতা নেলসন ম্যান্ডেলাকে।

যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কে আজ প্রতিবছরের মতো কাউন্ট-ডাউন ও টাইমস স্কয়ারের ওপর থেকে বল পড়ার মধ্য দিয়ে নতুন বছরকে স্বাগত জানানো হবে। ব্রাজিলের রিও ডি জেনেরিওতে কোপাকাবানা সমুদ্রসৈকতে জড়ো হবে প্রায় ২০ লাখ মানুষ। খবর বিবিসির।

পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন



আরো সংবাদ














ব্রেকিং নিউজ